বিএসইসির দেয়া তদন্ত কার্যক্রমের নির্দেশ স্থগিত

সময়: বুধবার, জানুয়ারি ১৩, ২০২১ ৬:৩৩:১৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক : তালিকাভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের অস্বাভাবিক উত্থান-পতন তদন্তের জন্য উভয় স্টক এক্সচেঞ্জকে দেওয়া নির্দেশ স্থগিত করেছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এর ফলে স্টক এক্সচেঞ্জগুলোতে গতকালকের (১২ জানুয়ারি) প্রেরিত চিঠির কার্যকারিতা স্থগিত হলো।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) স্থগিতাদেশের চিঠি উভয় স্টক এক্সচেঞ্জের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা বরাবর পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে নিশ্চিত করে বিএসইসির নির্বাহি পরিচালক ও মূখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে ও বাজার মধ্যস্থতাকারীদের অনুরোধে গতকালকের তদন্তের নির্দেশে স্থগিতাদেশ দিয়েছে কমিশন। এ সংক্রান্ত চিঠি উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) বিএসইসি ৪টি কারনে তালিকাভুক্ত কোম্পানির দর উত্থান-পতনের বিষয়ে উভয় স্টক এক্সচেঞ্জকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিল বিএসইসি। এরমধ্যে বিগত ৩০ কার্যদিবস বা কম সময়ের মধ্যে যদি কোন কোম্পানির শেয়ারের দাম ৫০ শতাংশ বাড়ে বা কমে, তার কারন খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছিল। যার জন্য বিএসইসির অনুমোদন লাগবে না এবং যখনই কোন কোম্পানির ক্ষেত্রে এমনটি হবে, তখনই তদন্ত করতে পারবে বলে জানানো হয়েছিল।

এছাড়া বিএসইসির চিঠিতে কোন কোম্পানির গড় লেনদেনের পরিমাণ আগের ৬ মাসের গড় লেনদেনের চেয়ে ৫ গুণের বেশি বাড়লে, কোন কোম্পানির বার্ষিক বা প্রান্তিক শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ৫০ শতাংশের বেশি উত্থান-পতন হলে এবং মূল্য সংবেদনশীল তথ্য (পিএসআই) প্রকাশের আগের ১০ কার্যদিবসে কোন কোম্পানির দাম ও লেনদেন ৩০ শতাংশের কম-বেশি হলে, সেসব কোম্পানির বিষয়েও তদন্ত করতে বলা হয়েছিল।

বিএসইসির ওই তদন্তের নির্দেশের বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশের পরে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরী হয়। এর প্রেক্ষিতে আজ শেয়ারবাজারে বড় ধস নেমেছে। বিনিয়োগকারীদের এই আতঙ্কের কারনে বিএসইসি গতকালকের নির্দেশে স্থগিতাদেশ দিয়েছে।

তবে বিএসইসির ওই উদ্যোগকে অনেকেই সাধুবাদ জানিয়েছিলেন। তাদের মতে, ওই তদন্তের মাধ্যমে শেয়ারবাজারের অনিয়ম বের করে আনা হত। যা সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগকে সুরক্ষা দিতে সহায়তা করত।

দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

নিউজটি ১৩৬ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged