লক-ইন ফ্রি হচ্ছে ১২ কোটি শেয়ার, চাপ বাড়ার আশঙ্কা

সময়: বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৯ ১১:২৫:৫৭ পূর্বাহ্ণ

নাজমুল ইসলাম ফারুক : আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে পুঁজিবাজারে লক-ইন ফ্রি হচ্ছে ১০টি কোম্পানির ১২ কোটিরও বেশি শেয়ার। আলোচ্য সময়ে ফ্রি হওয়া শেয়ারগুলোর মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী, উদ্যোক্তা পরিচালক বা প্লেসমেন্টধারীদের শেয়ার রয়েছে। মন্দা বাজারে এতো বেশি শেয়ার লক-ইন ফ্রি হওয়াকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন না বাজার সংশ্লিষ্টরা।
তাদের মতে, কাছাকাছি সময়ের মধ্যে এতোগুলো কোম্পানির শেয়ার ফ্রি হলে পুরো বাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। কারণ বাজারে এখন তারল্য সঙ্কট চলছে। সাধারণত প্লেসমেন্ট শেয়ারধারীরা শেয়ার বিক্রি করে বেরিয়ে যান। ফলে এই বিক্রিতে মার্কেট থেকে তহবিল বেরিয়ে যাবে বলে মনে করছেন তারা।
তারা আরো বলছেন, বাজারে দীর্ঘদিন ধরে মন্দা পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এমন বাজারে যদি বেশি শেয়ার সরবরাহ হয়, তাহলে দর কমে যাওয়ার আশঙ্কার আছে। এতে শেয়ারগুলোর সঠিক মূল্যায়ন হবে কি না Ñতা নিয়ে সংশয় রয়েছে। তাই প্রাতিষ্ঠানিক বিনিযোগকারীদের মতো প্লেসমেন্ট এবং অল্টারনেটিভ ফান্ডের লক-ইন পদ্ধতি ধাপে ধাপে হওয়া উচিত। এতে বাজার শেয়ারগুলো সহজে ধারণ করতে পারবে এবং বাজারে চাপ দৃশ্যমান হবে না।

এ সম্পর্কে অধ্যাপক আবু আহমেদ বলেন ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন’-কে বলেন, ‘নিয়মানুয়ায়ী এসব শেয়ার লক-ইন ফ্রি হবে। লক-ইন ফ্রি হওয়া মানে শেয়ারগুলো লেনদেনের স্বাধীনতা পাবে। যখন শেয়ারগুলো স্বাধীন হবে, তখন বাজারে ডিমান্ড থাকলে ভালো হবে। আর ভালো শেয়ার হলে তো ডিমান্ড থাকবেই। যদি তা না হয়, তাহলে বাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়ার আশঙ্কা আছে।’

এ সম্পর্কে ডিএসই ব্রোকারর্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ডিবিএ) সভাপতি শাকিল রিজভী ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন’-কে বলেন, ‘যেসব কোম্পানির শেয়ার লক-ইন ফ্রি হচ্ছে, সেগুলোর পারফরমেন্স দেখে বাজার তাদের দর ঠিক করে নেবে। যদি তাদের পারফরমেন্স ভালো হয়, তাহলে বিনিয়োগকারীরা মূল্যায়ন করবেন। আর যদি দুর্বল পারফরমেন্স হয়, তাহলে সেসব শেয়ারে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।’
যেসব কোম্পানির শেয়ার লক ইন ফ্রি হচ্ছে সেগুলো হচ্ছে- এস্কয়ার নিট কম্পোজিটের ৫২ লাখ ১০ হাজার শেয়ার আগামী ৯ অক্টোবর, সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ২ কোটি ৩ লাখ ৭০ হাজার শেয়ার ১০ অক্টোবর, এসএস স্টিলের ৩১ লাখ শেয়ার ১৭ অক্টোবর, ইন্দোবাংলা ফার্মার ২ কোটি ৫২ লাখ ১০ হাজার শেয়ার ১৮ অক্টোবর, ফরচুন সুজের ২ কোটি ৭৫ লাখ শেয়ার ২০ অক্টোবর, জেনেক্স ইনফোসিস ২৫ লাখ শেয়ার ৬ নভেম্বর, কাট্টালি টেক্সটাইলের ২ কোটি ৮০ লাখ ২০ হাজার ১২ নভেম্বর, রানার অটোমোবাইলসের ২০ লাখ ৮০ হাজার শেয়ার ২১ নভেম্বর, নিউ লাইন ক্লোথিংসের ৩৭ লাখ ৫০ হাজার শেয়ার ২৭ নভেম্বর এবং সিলকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ৩৭ লাখ ৫০ হাজার শেয়ার ১৩ ডিসেম্বর লক-ইন ফ্রি হবে।

প্রসঙ্গত বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কর্তৃক ‘সংশোধিত পাবলিক ইস্যু রুলস ২০১৫’-এর গেজেট অনুযায়ী, উদ্যোক্তা পরিচালক ও ১০ শতাংশ বা তার বেশি শেয়ার ধারণকারীদের জন্য ৩ বছর লক-ইন প্রযোজ্য হবে। এছাড়া উদ্যোক্তা পরিচালক ও ১০ শতাংশ বা তার বেশি শেয়ার ধারণকারীদের হস্তান্তরকৃত শেয়ারে লক-ইন ৩ বছর, আইপিওর ৪ বছরে পূর্বে ইস্যুকৃত শেয়ারে ১ বছর, অল্টারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের ক্ষেত্রে ১ বছর ও বাকি অন্যসব শেয়ারে ২ বছর লক-ইন রাখা হবে।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Tagged