১৫ কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ

সময়: বৃহস্পতিবার, জুলাই ৩০, ২০২০ ১:০৭:১৪ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক : আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ১৫ কোম্পানি। কোম্পানিগুলো হলো-এশিয়া ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড, ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড, এনসিসি ব্যাংক লিমিটেড, আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেড, সিটি জেনারেল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড, গোল্ডেন হার্ভেস্ট অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেড, আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড, লিন্ডে বাংলাদেশ লিমিটেড, ডেল্টা ব্রাক হাউজিং লিমিটেড এবং ইউনাইটেড ফাইন্যান্স লিমিটেড। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ডেল্টা ব্রাক হাউজিং লিমিটেড : কোম্পানিটি দ্বিতীয় প্রান্তিক (এপ্রিল-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। দ্বিতীয় প্রান্তিক (এপ্রিল-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.০৮ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ১.০৮ টাকা।
এদিকে, অর্ধবার্ষিকে ( জানুয়ারি-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৭৭ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩.৭৯ টাকা।
এছাড়া শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১২.৭৭ টাকা নেগেটিভ। ৩০ জুন, ২০২০ পর্যন্ত কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ৩৭.৭৩ টাকা।

ইউনাইটেড ফাইন্যান্স লিমিটেড : কোম্পানিটি দ্বিতীয় প্রান্তিক (এপ্রিল-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। দ্বিতীয় প্রান্তিক (এপ্রিল-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১১ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৩৩ টাকা।
এদিকে, অর্ধবার্ষিকে ( জানুয়ারি-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৭ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৭১ টাকা।
৩০ জুন, ২০২০ পর্যন্ত কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৭.২৫ টাকা।

এশিয়া ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড : দ্বিতীয় প্রান্তিক (এপ্রিল-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বীমা খাতের কোম্পানি এশিয়া ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড। দ্বিতীয় প্রান্তিক (এপ্রিল-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪৩ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৪০ টাকা।
এদিকে, অর্ধবার্ষিকে ( জানুয়ারি-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০৩ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৯৪ টাকা।
এছাড়া শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ২.৩৮ টাকা। ৩০ জুন, ২০২০ পর্যন্ত কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ২০.৮৪ টাকা।

ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড : চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে সমন্বিতভাবে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি আয় (কনসোলিডেটেড ইপিএস) হয়েছে ৯১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে সমন্বিত ইপিএস হয়েছিল ৮৯ পয়সা।
অন্যদিকে দ্বিতীয় প্রান্তিকে এককভাবে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ৮৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় হয়েছিল ৮৯ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে ব্যাংকটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ১ টকা ৯৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৯৫ পয়সা।
প্রথম দুই প্রান্তিকে এককভাবে ব্যাংকটির ইপিএস হয়েছে ১ টকা ৯১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৮৮ পয়সা।
দুই প্রান্তিক মিলিয়ে সমন্বিতভাবে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল মাইনাস ১৪ টাকা ২২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ১৬ টাকা ৩০ পয়সা।
অন্যদিকে দুই প্রান্তিক মিলিয়ে এককভাবে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল ১৫ টাকা ৫৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ১৬ টাকা ৫০ পয়সা।
গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে সমন্বিতভাবে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয় ৩৩ টাকা ৯৫ পয়সা। আর একক ইপিএস ছিল ৩৩ টাকা ৪৩ পয়সা।

ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড : চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে সমন্বিতভাবে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ১ টাকা ১৪পয়সা। আগের বছর একই সময়ে সমন্বিত ইপিএস হয়েছিল ১ টাকা টাকা ৮ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে ব্যাংকটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ১০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৭৭ পয়সা।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে এককভাবে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ১ টাকা ১৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে সমন্বিত ইপিএস হয়েছিল ১ টাকা ৬ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে ব্যাংকটির একক ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৭০ পয়সা।
দুই প্রান্তিক মিলিয়ে সমন্বিতভাবে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল ৩৯ টাকা ৭৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ৩২ টাকা ৯২ পয়সা।
গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে সমন্বিতভাবে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয় ২৭ টাকা ১০ পয়সা। আর এককভাবে এনএভিপিএস ছিল ২৬ টাকা ৫৩ পয়সা।

শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড : চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে সমন্বিতভাবে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি আয় (কনসোলিডেটেড ইডঈএগ) হয়েছে ৪৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে সমন্বিত ইপিএস হয়েছিল ৬৩ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে কোম্পানিটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ১০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ১৩ পয়সা।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে এককভাবে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ৫০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে সলো ইপিএস হয়েছিল ৬৬ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিকে সলো ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ১৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ১৩ পয়সা।
দুই প্রান্তিক মিলিয়ে সমন্বিতভাবে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল ৫ টাকা ২৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ৭ টাকা ২৮ পয়সা।
গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে সমন্বিতভাবে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয় ১৮ টাকা ৮০ পয়সা।

সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড : চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় হয়েছে ৬৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় হয়েছিল ১ টাকা ৮২ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে ব্যাংকটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৬৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় ছিল ২ টাকা ২৫ পয়সা।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে এককভাবে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ৬৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে সলো ইপিএস হয়েছিল ১ টাকা ৮০ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে কোম্পানিটির সলো ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৬২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় ছিল ২ টাকা ২১ পয়সা।
দুই প্রান্তিক মিলিয়ে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত ক্যাশ ফ্লো ছিল মাইনাস ৩ টাকা ৬১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ৬ টাকা ৪২ পয়সা।
গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে শেয়ার প্রতি সমন্বিত প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয় ২৭ টাকা ৯৫ পয়সা। আর এককভাবে ছিল ২৭ টাকা ৮৮ পয়সা।

এশিয়া ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড : চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৪৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় হয়েছিল ৪০ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে কোম্পানিটির আয় হয়েছে ১ টাকা ৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় ছিল ৯৪ পয়সা।
দুই প্রান্তিক মিলিয়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল ২ টাকা ৩৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ১ টাকা ৪২ পয়সা।
গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয় ২০ টাকা ৪৮ পয়সা।

এনসিসি ব্যাংক লিমিটেড : কোম্পানিটি চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় হয়েছে ৩৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় হয়েছিল ৮৪ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে কোম্পানিটির সমন্বিত আয় হয়েছে ১ টাকা ১৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় ছিল ১ টাকা ২৫ পয়সা।
দুই প্রান্তিক মিলিয়ে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত ক্যাশ ফ্লো ছিল মাইনাস ১ টাকা ৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ৬ টাকা ৯৩ পয়সা।
গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে শেয়ার প্রতি সমন্বিত প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয় ২২ টাকা ১৬ পয়সা।

আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেড : চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে সমন্বিতভাবে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ১১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে সমন্বিত ইপিএস হয়েছিল ৫৮ পয়সা।
অন্যদিকে দ্বিতীয় প্রান্তিকে এককভাবে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে সমন্বিত ইপিএস হয়েছিল ৪৭ পয়সা।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে সমন্বিতভাবে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল মাইনাস ৫ টাকা ৪৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ৬ টাকা ৪৫ পয়সা।
গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে সমন্বিতভাবে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয় ১৮ টাকা ৪৫ পয়সা। আর এককভাবে ছিল ১৭ টাকা ১৪ পয়সা।

সিটি জেনারেল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড : চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় হয়েছিল ২৮ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে কোম্পানিটির আয় হয়েছে ২৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় ছিল ৬২ পয়সা।
দুই প্রান্তিক মিলিয়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল ৫৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ১৭ পয়সা।
গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয় ১৫ টাকা ৯৩ পয়সা।

গোল্ডেন হার্ভেস্ট অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড : কোম্পানিটি ৩১ মার্চ, ২০২০ তারিখে সমাপ্ত তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২০-মার্চ’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
অনিরীক্ষিত প্রতিবেদন অনুসারে, চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ০৪ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে আয় হয়েছিল ৪০ পয়সা।
অন্যদিকে প্রথম তিন প্রান্তিকে তথা ৯ মাসে (জুলাই’১৯-মার্চ’২০) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইডঈএগ) হয়েছে ৬০ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে তা ছিল ৮৬ পয়সা।
তিন প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নগদ অর্থের প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) ছিল ২ টাকা ৪১ পয়সা। আগের বছর একই সময় ছিল ১ টাকা ৩৭ পয়সা।
গত ৩১ মার্চ, ২০২০ তারিখে শেয়ার প্রতি সমন্বিত প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ১৫ টাকা ৫৮ পয়সা।

লিন্ডে বাংলাদেশ লিমিটেড : কোম্পানিটি চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
আলোচিত প্রান্তিকে কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) করেছে ৪ টাকা ৭৯ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে তা ১৮ টাকা ৪৯ পয়সা ছিল।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক মিলিয়ে কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) করেছে ২৫ টাকা ১৬ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে তা ৩৬ টাকা ৭৬ পয়সা ছিল।
দুই প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল ১৩ টাকা ৭৪ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ৫৩ টাকা ৩৯ পয়সা ছিল।
গত ৩১ মার্চ, ২০২০ তারিখে কোম্পানির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ৩৫৭ টাকা ৮৫ পয়সা।

ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড : চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৬৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস হয়েছিল ৭৬ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৫৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ টাকা ৫৬ পয়সা।
দুই প্রান্তিক মিলিয়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল ১৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ৭৫ পয়সা।
গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয় ৪৫ টাকা ৯৮ পয়সা।

আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক : কোম্পানিটি লিমিটেড চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান হয়েছিল ১৩ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে কোম্পানিটির লোকসান হয়েছে ৩২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ২৯ পয়সা।
দুই প্রান্তিক মিলিয়ে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল মাইনাস ৪৪ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ৪৫ পয়সা।
গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয় মাইনাস ১৭ টাকা ৪৩ পয়সা।

স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেড : কোম্পানিটি চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল’২০-জুন’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।
দ্বিতীয় প্রান্তিকে সমন্বিতভাবে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৩২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে সমন্বিত লোকসান হয়েছিল ০৩ পয়সা।
চলতি হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে কোম্পানিটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ০.৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৯ পয়সা।
দুই প্রান্তিক মিলিয়ে সমন্বিতভাবে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো ছিল মাইনাস ৩ টাকা ৭০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ক্যাশ ফ্লো ছিল ১০ টাকা ৪৩ পয়সা।
গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে সমন্বিতভাবে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয় ১৭ টাকা ০৭ পয়সা।

দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Tagged