editorial

উদ্বিগ্ন পিপলস লিজিং-এর আমানতকারীরা

অর্থ ফিরিয়ে দেয়ার উদ্যোগ নিতে হবে সরকারকেই

সময়: বুধবার, নভেম্বর ৬, ২০১৯ ৬:০২:২৭ অপরাহ্ণ


ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান ‘পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস’ (পিএলএফএস)-এ গচ্ছিত রাখা অর্থ ফেরৎ পাবেন কি নাÑ বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন প্রতিষ্ঠানটির আমানতকারীরা। নানা অনিয়ম ও আর্থিক কেলেঙ্কারির জের হিসেবে সরকারের নির্দেশে প্রতিষ্ঠানটি এখন চূড়ান্ত অবসায়নের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। অন্যদিকে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারহোল্ডাররাও রয়েছেন বিপাকে। তারা কীভাবে বা কোন প্রক্রিয়ায় তাদের বিনিয়োগকৃত অর্থ ফিরে পাবেনÑ সেটা নিয়েও রয়েছে অনিশ্চয়তা। এমতাবস্থায় পিএলএফএস-এর আমানতকারী ও শেয়ারহোল্ডারদের স্বার্থ রক্ষার উদ্যোগ নিতে হবে সরকারকেই।
সম্প্রতি পিএলএফএস-এ গচ্ছিত রাখা অর্থ ফেরত পেতে অর্থমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন প্রতিষ্ঠানটির আমানতকারীরা। গত সোমবার অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতে দুটি দাবির কথা তারা জানিয়েছেন। একটি হচ্ছেÑ পিপিলস লিজিং অ্যান্ড ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস (পিএলএফএস)-এর অবসায়ন (বন্ধ) প্রক্রিয়া বন্ধ করা এবং দ্বিতীয়টি হচ্ছেÑ ক্ষুদ্র ও ব্যক্তি আমানতকারীদের সঞ্চয় আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে ফেরত দেয়ার ব্যবস্থা করা।
পিএলএফএস-এর আমানতকারীরা জানান, ‘পিপলস লিজিংয়ের ক্ষুদ্র আমানতকারীরা তাদের কষ্টার্জিত অর্থ রেখে এখন তা ফেরত না পেয়ে চরম অসহায় অবস্থায় দিন পার করছে। তারা কোথায় গেলে এই টাকা ফেরত পাবেন, সেটার কোনো নিশ্চয়তা নেই। এই টাকা থেকে অনেক অবসরপ্রাপ্ত মানুষের সংসারের ব্যয় নির্বাহ, ছেলেমেয়েদের লেখাপড়া ও চিকিৎসা খরচ চলতো। এখন সব বন্ধ।
তারা বলছেন, একটি অসাধু চক্র সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা মাফিক আমানতকারীদের সর্বস্বান্ত করে দেয়ার চক্রান্তে লিপ্ত রয়েছে। তারা বিভিন্ন কৌশলে, নামে-বেনামে আমানতকারীদের অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। এখানেই তারা থামেনি। পরিকল্পনা মাফিক তারা এই প্রতিষ্ঠানটিকে অবসায়নের পর্যায়ে নিয়ে গেছে। এভাবে চলতে থাকলে এই চক্র সব দায়-দেনা থেকে মুক্তি পাবে। আর বিদেশে পাচার হয়ে যাবে শত কোটি টাকা।

Share
নিউজটি ৩৩৪ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged