অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার কেলেঙ্কারি : পুঁজিবাজার সংক্রান্ত মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি হওয়া দরকার

সময়: বুধবার, আগস্ট ২১, ২০১৯ ৪:১৪:৩২ পূর্বাহ্ণ


প্রতারণার মাধ্যমে ১৯৯৬ সালে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে ‘অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ’ (সাবেক বাংলাদেশ কার্বাইড লিমিটেড)-এর বিরুদ্ধে শেয়ার কেলেঙ্কারি মামলাটি নানা কারণে প্রায় দশ বছর ধরে ঝুলে আছে। কোম্পানিটির বিরুদ্ধে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি মামলাটি দায়ের করেছিল ১৯৯৯ সালে। অতি সম্প্রতি ‘পুঁজিবাজার বিষয়ক বিশেষ ট্রাইব্যুনাল’-এ মামলাটির শুনানির দিন নির্ধারিত ছিল। এদিন মামলার বাদীপক্ষ অর্থাৎ বিএসইসি শুনানি পেছানোর আবেদন জানালে আরও ছয় মাস সময় দিয়েছে ট্রাইব্যুনাল। এ নিয়ে দুই দফা সময় বাড়ানোর আবেদন জানালো বিএসইসি। মামলার বাদীপক্ষ হিসেবে বিএসইসি’র দায়িত্ব যেখানে দ্রুত মামলা নিষ্পত্তির উদ্যোগ নেয়া, সেখানে এর পরিবর্তে নিয়ন্ত্রক সংস্থার পক্ষ থেকে দফায় দফায় সময় বাড়ানোর আবেদন করায় অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ারহোল্ডাররা হতাশ। এ প্রেক্ষিতে সার্বিক সুশাসনের স্বার্থেই পুঁজিবাজার সংক্রান্ত মামলাগুলোর দ্রুত নিষ্পত্তি হওয়া দরকার বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।
জানা যায়, ১৯৯৯ সালে মামলা দায়েরের পর নানা কারণে উচ্চ আদালতের নির্দেশে মামলাটির কার্যক্রম ২০১৩ সাল থেকে স্থগিত ছিল। এরপর ২০১৫ সালে মামলাটি ‘পুঁজিবাজার বিষয়ক বিশেষ ট্রাইব্যুনাল’-এ স্থানান্তর করা হয়। পরবর্তীতে ২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও শহিদুল করিমের দ্বৈত বেঞ্চ মামলাটির বিচার কার্যক্রমের ওপর স্থগিতাদেশ বাতিলের আদেশ দেন। ফলে মামলাটি পুনরায় সচল হয়। গত বছর ২৪ জুলাই ট্রাইব্যুনালে উচ্চ-আদালতের স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের কপি দাখিলের মাধ্যমে মামলাটির বিচার কাজ শুরু হয়। ওই বছরই ২৯ আগস্ট মামলাটির অভিযোগ (চার্জ) গঠন করা হয়। বিএসইসি’র আবেদনের প্রেক্ষিতে গত বছর অক্টোবরে হাইকোর্ট প্রথম দফায় মামলাটির কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে ছয় মাসের স্থগিতাদেশ দেন। পরবর্তীতে আগের ছয় মাস স্থগিতাদেশের মেয়াদ শেষ হওয়ার ঠিক আগ মুহূর্তে ফের সময় বৃদ্ধির আবেদন করে বিএসইসি। ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে চলতি বছরের ২৪ জুলাই হাইকোর্টের বিচারপতি রেজাউল হক ও জাফর আহমেদের দ্বৈত বেঞ্চ মামলাটির বিচার কার্যক্রমের ওপর দ্বিতীয় দফায় ছয় মাস স্থগিতাদেশ দেন। বিএসইসি’র আবেদনের প্রেক্ষিতে সর্বশেষ গত সোমবার (১৯ আগস্ট) আরও ছয় মাসের জন্য স্থগিতাদেশ দেয় ট্রাইব্যুনাল।

Share
নিউজটি ৩৭৮ বার পড়া হয়েছে ।