আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগ সীমায় ক্রয়মূল্যে গণনার নির্দেশ

সময়: Sunday, August 14th, 2022 9:10:42 pm


নিজস্ব প্রতিবেদক: ব্যাংকের পর এবার নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানেরও (এনবিএফআই) পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের সুযোগ বেড়েছে। এখন থেকে পুঁজিবাজারে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের উর্ধসীমা নির্ধারণে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত শেয়ার, ডিবেঞ্চার, কর্পোরেট বন্ড, মিউচুয়াল ফান্ড ইউনিট এবং পুঁজিবাজারের অন্যান্য নিদর্শনপত্রে বিনিয়োগ হিসাবায়নের ক্ষেত্রে বাজারমূল্যের পরিবর্তে ক্রয়মূল্য বিবেচনা করা হবে। আজ রোববার (১৪ আগস্ট) বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভাগ থেকে এই সম্পর্কিত একটি নির্দেশনা জারি করেছে।

নির্দেশনাটি দেশে কার্যরত সব আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাছে পাঠানো হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনায় বলা হয়, আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ধারণকৃত শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত সব ধরনের শেয়ার, ডিভেঞ্চার, কর্পোরেট বন্ড, মিউচুয়াল ফান্ড ইউনিট এবং শেয়ারবাজারের অন্যান্য নিদর্শনপত্র ‘বাজারমূল্যে’ এর পরিবর্তে ‘ক্রয়মূল্যে’ বিবেচনা করতে হবে।

উক্ত সার্কুলারের অন্যান্য নির্দেশনা অপরিবর্তিত রেখে এই নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে। ব্যাংক-কোম্পানি আইন ১৯৯৩ এর ধারা ১৮ (ছ) পদত্ত ক্ষমতাবলে এই নির্দেশনা জারি করা হলো।

এর আগে, বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠির আলোকে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ সীমা গণনায় বাজার দরের পরিবর্তে ক্রয় মূল্যকে (কস্ট প্রাইস) বিবেচনায় নেওয়া যেতে পারে বলে মতামত দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ। গত ০২ আগস্ট উপসচিব মো: জেহাদ উদ্দিন সাক্ষরিত এই সংক্রান্ত একটি চিঠি বাংলাদেশ ব্যাংকে পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, শেয়ারবাজারে বিনিয়োগে ব্যাংকের বিনিয়োগ সীমা নির্ধারনে ক্রয়কৃত মূল্যকে (কস্ট প্রাইস) বাজার মূল্য হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে।

তারও আগে গত ১৭ জুলাই বিনিয়োগ সীমা গণনায় বাজার দরের পরিবর্তে ক্রয় মূল্যকে (কস্ট প্রাইস) বিবেচনায় নেওয়ার বিষয়ে মতামত চেয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক।

এর প্রেক্ষিতে ব্যাংকের বিনিয়োগ সীমা বাজার দরের পরিবর্তে ক্রয় মূল্যে (কস্ট প্রাইস) গণনা করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

 

নিউজটি ৩৩ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged