ব্যবসা ও বিনিয়োগ কমছে সানলাইফ ইন্স্যুরেন্সের

আয়ের চেয়ে ব্যয় বেশি

সময়: রবিবার, নভেম্বর ২৪, ২০১৯ ৮:৫৮:৪০ পূর্বাহ্ণ


অনুপ সর্বজ্ঞ : আশঙ্কাজনক হারে ব্যবসা ও বিনিয়োগ কমছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সানলাইফ ইন্স্যুরেন্সের। অথচ কোম্পানিটির ব্যয় আয়ের চেয়ে বহুগুন বেশি। বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
আইডিআরএ’র তথ্য অনুসারে, ২০১৮ সালে কোম্পানিটির গ্রস প্রিমিয়াম আয় এসে দাঁড়িয়েছে ৮০ কোটি ৭১ লাখ টাকায়। যা আগের বছর ছিল ১০৮ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। এদিকে গত বছর সানলাইফের মোট ব্যয় হয়েছে ৯৯ কোটি ২৯ লাখ টাকা। অর্থাৎ গ্রস প্রিমিয়াম আয়ের তুলনায় ১২৩ দশমিক শূন্য ২ শতাংশ বা ৭০ কোটি ৫৯ লাখ টাকা বেশি ব্যয় করেছে কোম্পানিটি।
জানা যায়, এ বছরের প্রথম প্রান্তিকে এ কোম্পানির গ্রস প্রিমিয়াম আয় হয়েছে মাত্র ১২ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। তবে এ সময় কোম্পানিটির মোট ব্যয় হয়েছে ২৩ কোটি টাকা। অর্থাৎ আয়ের তুলনায় ১৭ কোটি ৮৪ লাখ টাকা বা ১৮৬ দশমিক ১৬ শতাংশ বেশি ব্যয় করেছে এ কোম্পানি।
এ প্রসঙ্গে সানলাইফ ইন্স্যুরেন্সের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিনকে বলেন, আমরা কমিশনের ওপরে কিছুটা করাকরি আরোপ করেছি। যার ফলে আমাদের ব্যবসা কমেছে। এছাড়া প্রথম বর্ষ ব্যবসা কমে যাওয়ার কারণে ব্যয় বড়েছে বলে মনে করছেন তিনি।
জানা যায়, ২০১৮ সালে সানলাইফের বিনিয়োগ দাঁড়িয়েছে ১০৪ কোটি ৫৫ লাখ টাকায়। যা এর আগের বছর ছিল ২১৯ কোটি ৭২ লাখ টাকা। অর্থাৎ ২০১৭ সালের তুলনায় গত বছর কোম্পানিটির বিনিয়োগ কমেছে ৫২ দশমিক ৪২ শতাংশ। এ বছরের প্রথম প্রান্তিকেও এর বিনিয়োগ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ১৫ দশমিক ৪১ শতাংশ কমেছে।
এদিকে, ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য লভ্যাংশ দিতে ব্যর্থ হয়েছে সানলাইফ। এতে কোম্পানিটিকে ‘বি’ থেকে ‘জেড’ ক্যটাগরিতে নামিয়ে দিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কর্তৃপক্ষ। ২০১৭ সালে ২ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দেয় কোম্পানিটি। এর আগে টানা দুই বছর কোন লভ্যাংশ দেয়নি সানলাইফ। ২০১৪ সালে ৬ শতাংশ ও ২০১৩ সালে ৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দেয় সানলাইফ।
এ কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ৫০ কোটি টাকা ও পরিশোধিত মূলধন ৩৫ কোটি ৭৬ লাখ ১০ হাজার টাকা। এ কোম্পানির মোট শেয়ার সংখ্যা ৩ কোটি ৫৭ লাখ ৬০ হাজার ৬৯০ টি। এর মধ্যে উদ্যোক্তা পরিচালক ৪০ দশমিক ৮০ শতাংশ, প্রতিষ্ঠান ২৬ দশমিক ৩৭ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে ৩২ দশমিক ৮৩ শতাংশ শেয়ার।
ডিএসইতে বৃহস্পতিবার এ শেয়ারের সর্বশেষ দর ২ দশমিক ৬৭ শতাংশ বা ৪ পয়সা বেড়ে দাঁড়ায় ১৫ টাকা ৪০ পয়সায়। দিনভর দর ১৪ টাকা ৭০ পয়সা থেকে ১৫ টাকা ৪০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। সমাপনী দর ছিল ১৫ টাকা ৩০ পয়সা। যা এর আগের কার্যদিবসে ছিল ১৫ টাকা। এদিন ৩২ বারে কোম্পানিটির মোট ১৩ হাজার ৯৮১টি শেয়ারের লেনদেন হয়।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গত একমাসে এর সর্বনিম্ন দর ছিল ১৪ টাকা ৫০ পয়সা ও সর্বোচ্চ দর ১৫ টাকা ৫০ পয়সা।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৪৯৬ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged