উৎপাদন বন্ধ থাকলেও আলহাজ্ব টেক্সটাইলের দরে উল্লম্ফন

সময়: বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ৭, ২০১৯ ১২:২০:১০ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : কয়েক দফা সময় বাড়িয়েও উৎপাদন শুরু করতে পারেনি বস্ত্র খাতের কোম্পানি আলহাজ্ব টেক্সটাইল। অবশেষে অনির্দিষ্টকালের জন্য উৎপাদন বন্ধ করে দিয়েছে কোম্পানিটি। উৎপাদন বন্ধ থাকলেও কোম্পানিটির শেয়ারদর টানা বাড়ছে। বন্ধ কোম্পানির শেয়ার দরের এমন উল্লম্ফনে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে সংশয় দেখা দিয়েছে।
তথ্যমতে, গতকাল কোম্পানির প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ৩৭ টাকা লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের তুলনায় ৮ দশমিক ৮২ শতাংশ বা ৩ টাকা বেশি। ফলে গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের দর বৃদ্ধির শীর্ষ তালিকায় উঠে এসেছে কোম্পানিটি।
উৎপাদন বন্ধের পর থেকে কোম্পানির শেয়ারে দরপতন অব্যাহত ছিল। গত ২২ অক্টোবর কোম্পানির প্রতিটি শেয়ার ২৪ টাকা ২০ পয়সায় লেনদেন হয়েছে। এরপর থেকে কোম্পানির শেয়ার দরে উল্লম্ফন দেখা দিয়েছে। আলোচ্য সময়ে ব্যবধানে কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে ১২ টাকা ৪০ পয়সা।
বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে আলাপকালে তারা জানান, বন্ধ কোম্পানির দর বাড়ায় তাদের মধ্যে সংশয় দেখা দিয়েছে। মন্দা বাজারে মৌলভিত্তি সম্পন্ন কোম্পানির দরে ইতিবাচক প্রভাব নেই। অথচ বন্ধ কোম্পানির দরে উল্লম্ফন। বন্ধ কোম্পানির দর বাড়ানোর পেছনে কোনো চক্র জড়িত আছে কিনা তা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনকে (বিএসইসি) খতিয়ে দেখার দাবি জানান তারা।
জানা গেছে, মূলধন ঘাটতিসহ নানা সঙ্কটে রয়েছে আলহাজ্ব টেক্সটাইল। এর মধ্যে চলতি মূলধন সঙ্কট, বাজারে পণ্যের চাহিদা কমায় লোকসানে পড়েছে। এ সঙ্কটের মধ্যেই কোম্পানির কারাখানা কিছুটা আধুনিকায়ন করার চেষ্টা করা হচ্ছে। ফলে গত ২৫ জুন থেকে এক মাস সময় নিয়ে কারখানায় উৎপাদন বন্ধ করে আলহাজ্ব টেক্সটাইল। পরবর্তীতে কয়েকদফা সময় বাড়িয়েও উৎপাদন শুরু করুতে না পেরে অবশেষে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়।
একই সঙ্গে কোম্পানিটি সব শ্রমিক ছাঁটাইয়েরও সিদ্ধান্ত নিয়েছে পর্ষদ। শ্রম আইন অনুযায়ী শ্রমিক ছাঁটাই করবে প্রতিষ্ঠানটি। পরবর্তীতে পরিস্থিতির উন্নতি হলে এবং উৎপাদন চালু করার পর শ্রমিক নিয়োগ দেয়া হবে।
এদিকে কোম্পানিটির এক পরিচালক বিরুদ্ধে সিকিউরিটিজ আইন লঙ্ঘন করার প্রমাণ পেয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এ কারণে ওই পরিচালকের বিরুদ্ধে এনফোর্সমেন্ট বিভাগকে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয় কমিশন।
কোম্পানির প্রধান অর্থ কর্মকর্তা ও কোম্পানি সচিব শওকত আলী ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন’কে বলেন, বারবার সময় নিয়েও কোম্পানির অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় শ্রম আইন অনুযায়ী অনির্দিষ্টকালের জন্য উৎপাদন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আলহাজ্ব টেক্সটাইল। উৎপাদন বন্ধ থাকার পরও কেন দর বাড়ছে তা আমরা বলতে পারছি না।
পুঁজিবাজারে ১৯৮৩ সালে তালিকাভুক্ত হয় আলহাজ্ব টেক্সটাইল। কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ৫০ লাখ টাকা এবং পরিশোধিত মূলধন ২২ কোটি ২৯ লাখ টাকা। কোম্পানির শেয়ার সংখ্যা ২ কোটি ২২ লাখ ৯৮ হাজার ৫৪৯টি। এর মধ্যে উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছে ১২ দশমিক ৭৮ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ১০ দশমিক ৭৬ শতাংশ, সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৭৬ দশমিক ৪৩ শতাংশ শেয়ার আছে।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩১১ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged