খেলাপি ঋণের ৬৩ শতাংশই ১০ ব্যাংকে

সময়: মঙ্গলবার, আগস্ট ২৭, ২০১৯ ৪:০১:১০ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : ব্যাংক খাতের মোট খেলাপি ঋণের ৬৩ শতাংশই ১০টি ব্যাংকে। চলতি বছরের জুন শেষে এই ব্যাংকগুলোতে মোট খেলাপি ঋণ দাঁড়িয়েছে ৭১ হাজার ১৩৩ কোটি টাকা; যেখানে ব্যাংক খাতে মোট খেলাপির পরিমাণ ১ লাখ ১২ হাজার ৪২৫ কোটি টাকা। টাকার অঙ্কে খেলাপি ঋণের শীর্ষ দশে থাকা ব্যাংকগুলো হচ্ছে- জনতা, সোনালী, বেসিক, এবি, অগ্রণী, রূপালী, বাংলাদেশ কৃষি, ইসলামী ব্যাংক, ন্যাশনাল ও স্যোসাল ইসলামী। আবার বিতরণকৃত ঋণের মধ্যে খেলাপির হারের দিক দিয়ে শীর্ষ দশে রয়েছে- ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান, আইসিবি ইসলামী ব্যাংক, পদ্মা, বেসিক, বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক, বাংলাদেশ কমার্স, জনতা, সোনালী, এবি ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক।
বাংলাদেশ ব্যাংক প্রণীত ব্যাংকগুলোর জুন প্রান্তিকের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।
জুন শেষে ব্যাংক খাতে সর্বোচ্চ খেলাপি জনতা ব্যাংকে। বিসমিল্লাহ থেকে শুরু করে এনটেক্স পর্যন্ত বড় কয়েকটি ঋণ কেলেঙ্কারি ও ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের অদক্ষতার কারণে ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৯৯৫ কোটি টাকা। ব্যাংকটির বিতরণকৃত ঋণের প্রায় ৪৩ শতাংশই খেলাপিতে পরিণত হয়েছে।
খেলাপির পরিমাণের দিক দিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে সোনালী ব্যাংক। জুন শেষে ব্যাংকটির খেলাপি দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ১৬৫ কোটি টাকা। ব্যাংকটির বিতরণকৃত ঋণের মধ্যে ২৯ দশমিক ৪৬ শতাংশই খেলাপি।
তৃতীয় অবস্থানে থাকা বেসিক ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৯ হাজার ১১৩ কোটি টাকা; যা বিতরণকৃত ঋণের ৬০ দশমিক ৫০ শতাংশ। চতুর্থ অবস্থানে থাকা এবি ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৬ হাজার ৭৬৪ কোটি টাকা। বেসরকারি খাতের এই ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের পরিমাণ বিতরণকৃত ঋণের ২৮ দশমিক ১১ শতাংশ। বাংলাদেশের ইতিহাসে এই প্রথম কোনো বেসরকারি ব্যাংকে এতো বড় অঙ্কের খেলাপি হলো।
খেলাপি ঋণের পরিমাণের দিক দিয়ে পঞ্চম অবস্থানে রয়েছে অগ্রণী ব্যাংক। জুনভিত্তিক হিসাবে ব্যাংকটির মোট খেলাপি ৬ হাজার ২৬৯ কোটি টাকা; যা ব্যাংকটির মোট বিতরণকৃত ঋণের ১৬ দশমিক ৩৪ শতাংশ। ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে সরকারি মালিকানাধীন আরেকটি বাণিজ্যিক ব্যাংক রূপালী। ব্যাংকটির খেলাপির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৩১১ কোটি টাকা; যা মোট বিতরণকৃত ঋণের ১৭ দশমিক ২৫ শতাংশ।
খেলাপি ঋণের পরিমাণের দিক দিয়ে সপ্তম অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক। জুন ২০১৯ শেষে বিশেষায়িত সরকারি এই ব্যাংকটির মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৫৬৬ কোটি টাকা, যা মোট বিতরণকৃত ঋণের ১৭ দশমিক ২০ শতংশ। খেলাপির দিক দিয়ে অষ্টম অবস্থানে বেসরকারি খাতের ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ। জুন শেষে ব্যাংকটির খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৩৬২ কোটি টাকা। এটা ব্যাংকটির মোট বিতরণকৃত ঋণের ৪ দশমিক ১৭ শতাংশ।
একই হিসাবে নবম অবস্থানে রয়েছে ন্যাশনাল ব্যাংক। ব্যাংকটির জুন শেষে খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৪০৫ কোটি টাকা। এই পরিমাণ ব্যাংকটির মোট বিতরণকৃত ঋণের ৭ দশমিক ৩৬ শতাংশ। দশম অবস্থানে থাকা স্যোসাল ইসলামী ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ২ হাজার ১৮২ কোটি টাকা, যা ব্যাংকটির মোট বিতরণকৃত ঋণের প্রায় ৯ শতাংশ।
এর আগে মার্চ ২০১৯ শেষে খেলাপির দিক দিয়ে শীর্ষ দশটি ব্যাংক ছিল- জনতা, অগ্রণী, রূপালী, ইসলামী, ন্যাশনাল, আল-আরাফাহ ইসলামী, মার্কেন্টাইল, ওয়ান, সাউথইস্ট ও স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক।
খেলাপির হারের দিক দিয়ে শীর্ষ দশে থাকা ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তানের খেলাপি ৯৭ দশমিক ৬৪ শতাংশ, আইসিবি ইসলামী ব্যাংকের ৮২ দশমিক ৬৪ শতাংশ, পদ্মা ব্যাংকের ৬৬ দশমিক ০৭ শতাংশ, বেসিক ব্যাংকের ৬০ দশমিক ৫০ শতাংশ, বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের ৫৫ দশমিক ৯৫ শতাংশ, বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকের ৪৪ দশমিক ৫৯ শতাংশ, জনতা ব্যাংকের ৪২ দশমিক ৯৬ শতাংশ, সোনালী ব্যাংকের ২৯ দশমিক ৪৬ শতাংশ, এবি ব্যাংকের ২৮ দশমিক ১১ শতাংশ ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের ২০ দশমিক ১৫ শতাংশ।

দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩৯১ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged