শীর্ষে ফারইস্ট লাইফ

জীবন বীমা খাতে তামাদি পলিসি ১৪ লাখ ৩৯ হাজার ৬৯১টি

সময়: বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ৩১, ২০১৯ ৯:২৪:৪৪ পূর্বাহ্ণ


অনুপ সর্বজ্ঞ : জীবন বীমা খাতে ২০১৮ সালে মোট তামাদি পলিসির (নির্ধারিত মেয়াদের আগে ঝরে পড়া পলিসি) সংখ্যা ১৪ লাখ ৩৯ হাজার হাজার ৬৯১টি। আর এর মধ্যে ঝরে পড়া পলিসির দিক থেকে শীর্ষে রয়েছে ‘ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স’। এর পরেই রয়েছে যথাক্রমে ‘পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স’, ‘ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স’, ‘পদ্মা ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স’ ও ‘ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স’।
বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)-এর তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালে ফারইস্ট ইসলামী লাইফের ৬ লাখ ৪২ হাজার ২৫০টি পলিসি ঝরে পড়েছে নির্ধারিত মেয়াদের আগেই। এ সময় কোম্পানিটির নতুন পলিসির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৮২ হাজার ৫১৪টি।
জানা গেছে, কোম্পানিটির জীবন বীমা তহবিলও কমেছে ২০১৮ সাালে ফারইস্ট লাইফের জীবন বীমা তহবিল দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৩৩০ কোটি ৪৩ লাখ টাকায়। যা ২০১৭ সালে ছিল ৩ হাজার ৩৪৬ কোটি ২৫ লাখ টাকা। অর্থাৎ ২০১৭ সালের তুলনায় ২০১৮ সালে এ কোম্পানির তহবিল কমেছে শূন্য দশমিক ৪৭ শতাংশ।
এ প্রসঙ্গে ফারইস্ট লাইফের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হেমায়েত উল্লাহর সঙ্গে ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও পাওয়া যায়নি।
ঝরে পড়া পলিসির দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স। নির্ধারিত মেয়াদের আগেই গত বছর এ কোম্পানির ৯১ হাজার পলিসি ঝরে পড়েছে। ওই বছর কোম্পানিটির নতুন পলিসির সংখ্যা ছিল ৩ লাখ ৯৫ হাজার ৮৬টি।
এ বিষয়ে পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্সের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিএম ইউসুফ আলী ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন’-কে বলেন, ‘পলিসি তামাদি হওয়ার পেছনে এজেন্টদের গাফিলতি রয়েছে। আবার কোন কোন ক্ষেত্রে গ্রাহকের উদাসীনতাও এর জন্য দায়ী। তবে নির্ধারিত সময়ের আগে ঝরে পড়া পলিসিগুলো পাঁচ বছরের মধ্যে পুনরায় চালু করার সুযোগ আছে।’
জানা যায়, পপুলার লাইফের তহবিলও ঋণাত্মক অবস্থায় রয়েছে। ২০১৮ সালে এ কোম্পানির তহবিলের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৭৮৮ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। যা ২০১৭ সালে ছিল ২ হাজার ২৮৬ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। অর্থাৎ গত বছর আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির তহবিল কমেছে ২১ দশমিক ৭৭ শতাংশ।
নির্ধারিত মেয়াদের আগেই ঝরে পড়া পলিসির দিক থেকে তৃতীয় অবস্থানে আছে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স। গত বছর এ কোম্পানির তামাদি পলিসির সংখ্যা ছিল ৮৯ হাজার ২৮২টি। ওই বছর এ কোম্পানির নতুন পলিসির সংখ্যা ছিল ২ লাখ ২৭ হাজার ৮৮২৫টি।
আইডিআরএ’র তথ্য অনুযায়ী সন্তোষজনক অবস্থায় আছে এ কোম্পানির জীবন বীমা তহবিল। ২০১৮ সালে কোম্পানিটির তহবিলের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৪৬১ কোটি টাকা। যা এর আগের বছর ছিল ৩ হাজার ২৯০ কোটি টাকা। অর্থাৎ ২০১৭ সালের তুলনায় ২০১৮ সালে এ কোম্পানির জীবন বীমা তহবিল বেড়েছে ৫ দশমিক ৯১ শতাংশ।
জানা গেছে, ২০১৮ সালে নির্ধারিত সময়ের আগেই পদ্মা ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ৭৯ হাজার ৪৪৬টি পলিসি ঝরে পড়েছে। ওই বছর এ কোম্পানির নতুন পলিসির সংখ্যা ছিল ২২ হাজার ৫৯৫টি।
এদিকে, ২০১৮ সালে পদ্মা ইসলামী লাইফের তহবিল দাঁড়িয়েছে ৫৮ কোটি ৭৯ লাখ টাকায়। যা এর আগের বছর ছিল ১২৮ কোটি ৮৩ লাখ টাকা। অর্থাৎ ২০১৭ সালের তুলনায় ২০১৮ সালে কোম্পানিটির তহবিল কমেছে ৫৪ দশমিক ৩৭ শতাংশ।
পলিসি ঝরে পড়ার দিক থেকে পঞ্চম স্থানে রয়েছে ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স। ২০১৮ সালে এ কোম্পানির মোট ৭৬ হাজার ৬০৮টি পলিসি ঝরে পড়েছে। এ বছর কোম্পানিটির নতুন পলিসির সংখ্যা ছিল ১ লাখ ৬১ হাজার ২২৭টি।
আইডিআরএ সূত্রে জানা যায়, গত বছর কোম্পানিটির জীবন বীমা তহবিলের পরিমাণ ছিল ৩ হাজার ৮২৯ কোটি টাকা। যা এর আগের বছর ছিল ৩ হাজার ৬৭৪ কোটি টাকা। অর্থাৎ ২০১৭ সালের তুলনায় ২০১৮ সালে এ কোম্পানির তহবিল বেড়েছে ৪ দশমিক ২৩ শতাংশ।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩১৪ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged