ডিএসই- ডিবিএ ও শীর্ষ ব্রোকারদের বৈঠক

পুঁজিবাজারের সংকট নিরসনে একগুচ্ছ সমস্যা চিহ্নিত

সময়: বুধবার, অক্টোবর ১৬, ২০১৯ ৯:২৩:৫৩ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : পুঁজিবাজারের সংকট নিরসনে একগুচ্ছ সমস্যা চিহ্নিত করেছে ডিএসই ব্রোকারস এসোসিয়েশন (ডিবিএ) ও শীর্ষ ব্রোকাররা। এসব সমস্যার মধ্যে রয়েছেÑ তারল্য সংকট, ব্রোকারেজ হাউজগুলোর শাখা স্বল্পতা, পুঁজিবাজারে সুশাসনের অভাব, আর্থিক প্রতিবেদন স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার ঘাটতি, মানহীন কোম্পানির আইপিও অনুমোদন ইত্যাদি।
পুঁজিবাজারে দীর্ঘদিন ধরে চলমান মন্দা পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে গতকাল মঙ্গলবার ‘ঢাকা স্টক একচেঞ্জ’ (ডিএসই)-এর সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এসব সমস্যা চিহ্নিত করা হয়। প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে চিহ্নিত সমস্যাগুলো আলোচনা ও পর্যালোচনার মাধ্যমে যাচাই-বাছাই করে পরবর্তীতে এগুলো সমাধানের জন্য ‘বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন’ (বিএসইসি) বরাবর পেশ করা হবে।
ডিএসই কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ইনচার্জ) আব্দুল মতিন পাটোয়ারী, ডিএসই’র পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমন, ডিবিএ’র সভাপতি মো. শাকিল রিজভীসহ শীর্ষ ব্রোকারেজ হাউসের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠক সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে পুঁজিবাজারে পতন অব্যাহত রয়েছে। এ পতনমুখী বাজারকে স্থিতিশীল করার লক্ষ্যে স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছে ডিএসই। বিগত দিনে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) আসা কোম্পানিগুলোর দর তলানি নেমে গেছে। এসব কোম্পানির মান নিয়ে বৈঠকে প্রশ্ন উঠেছে। এসব কোম্পানি বাজারে আসার আগে আর্থিক প্রতিবেদন ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে দেখালেও তালিকাভুক্তির পর তাদের প্রকৃত চিত্র বেরিয়ে এসেছে। এসব কারণে বাজারে বড় ধরনের নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। একইসঙ্গে বিনিয়োগকারীরা বাজারের প্রতি আস্থা হারাচ্ছে বলে বৈঠকে আলোচনায় উঠে আসে। এছাড়া তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর আর্থিক প্রতিবেদনে আরও সচ্ছতা আনার দাবি তোলা হয় বৈঠকে। এর মাধ্যমে সুশাসন নিশ্চিত করার গুরুত্বারোপ করা হয়। তাছাড়া বিএসইসি কর্তৃক ডিএসই-কে বারবার ‘ব্যর্থ’ বলে সমালোচনার কারণেও বিনিয়োগকারীদের মধ্যে এক ধরনের আস্থার সংকট সৃষ্টি হচ্ছে বলেও আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে ব্রোকারেজ হাউজ প্রতিনিধিরা তাদের শাখা বাড়ানোর বিষয়ে বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন শীর্ষ ব্রোকাররা।
বৈঠকের উপস্থিত ছিলেন শীর্ষ এক ব্রোকারেজ হাউজের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন’-কে বলেন, প্রতিদিন সূচক পতনের ফলে বাজারে আস্থার সংকট তলানি নেমে গেছে। আর এ পরিস্থিতিতে ডিএসই বৈঠক ডেকেছে। বৈঠকে বাজারের সংকটের নানা কারণ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে এসব কারণগুলোর তথ্য উপাত্ত নিয়ে আরো একটি বৈঠক হবে। ওই বৈঠকে বাজার সংকটের সমস্যাগুলো মোটা দাগে আলোচনা করা হবে, যা হবে তথ্য উপাত্ত ভিত্তিক। একই সঙ্গে পরবর্তী বৈঠকে সমস্যাগুলো সমাধানের উপায়ও খুঁজে বের করা হবে। এরপর একটি প্রস্তাবনা দেয়া হবে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি’র কাছে।
এদিকে, গত সোমবার রাষ্ট্রায়ত্ত বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান ‘ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ’ (আইসিবি)-এর সঙ্গে ডিবিএ’র বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে আইসিবি জানিয়েছে, বন্ডের মাধ্যমে সংগ্রহকৃত সকল অর্থ পুঁজিবাজারে সেকেন্ডারি মার্কেটে বিনিয়োগ করা হবে। ওইদিনই সোনালী ব্যাংক থেকে ২০০ কোটি টাকা পেয়েছে বলে জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করতে রেপোর (পুনঃক্রয় চুক্তি) মাধ্যমে অর্থ সরবরাহ শুরু করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এসব ইতিবাচক খবরে গতকাল মঙ্গলবার সূচকের বড় ধরনের উত্থান হয়েছে। তবে এর আগে ধারাবাহিক পতনে ডিএসই-তে লেনদেনে ৩০০ কোটি টাকার নিচে এবং ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৪ হাজার ৭১১ পয়েন্টে নেমে এসেছিল।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৪১৬ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged