সূচক কমলেও বেড়েছে লেনদেন

প্রায় আড়াই বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে সূচক

সময়: সোমবার, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৯ ৬:৪৫:২৯ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : গত দুই বছর আট মাসের সর্বনিম্ন স্থানে নিচে অবস্থান করছে ডিএসই‘র প্রধান সূচক। গত ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৬ ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স অবস্থান করে ৫০২৭.৯১ পয়েন্টে এবং আজ ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সূচক ৩৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ৫০৩৩.৫৩ পয়েন্টে।
এদিকে, টানা ৪ চার কার্যদিবস ধরে দরপতন হচ্ছে পুঁজিবাজারে। এর ফলে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আস্থা সঙ্কট বাড়ছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) আজ সূচকের পাশাপাশি কমেছে কমেছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। এদিন টাকার অংকে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে। আজ ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪৪২ কোটি ৯০ লাখ ৪৩ হাজার টাকা।
বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, আজ ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৩৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৫০৩৩ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১১৭২ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ১৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৭৭৫ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৫৪টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১০০টির, কমেছে ২০৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৫টির। আর দিন শেষে লেনদেন হয়েছে ৪৪২ কোটি ৯০ লাখ ৪৩ হাজার টাকা।
এর আগের কার্যদিবস দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স ২৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ৫০৭০ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১১৭৮ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১৭৯১ পয়েন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ৩৩২ কোটি ৪০ লাখ ৮১ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ১১০ কোটি ৪৯ লাখ ৬২ হাজার টাকা।
অন্যদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) আজও নিম্নমুখী প্রবণতা অব্যাহত রয়েছে। সূচক পতনের পাশাপাশি কমেছে বিভিন্ন কোম্পানির শেয়ারদর। তবে মোট লেনদেন গত রবিবারের তুলনায় সামান্য বেড়েছে।
সূচকের চিত্রে দেখা গেছে, লেনদেনের শুরু থেকে সূচক নিম্নমুখী ছিল। শেষ দিকে সামান্য ওপরে ওঠার চেষ্টা করে। ফলে দিনশেষে সিএসইর সার্বিক সূচক ৮৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৫ হাজার ৪১২ পয়েন্টে। অন্যদিকে সিএসইএক্স সূচক ৫৫ পয়েন্ট কমে ৯ হাজার ৩৫৫ পয়েন্টে অবস্থান করেছে।
এদিকে আজ মোট ২৪৭টি কোম্পানির লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৬৩টির কমেছে ১৫৩ টির আর অপরিবর্তিত ছিল ৩১ কোম্পানির শেয়ার দর। আর দিন শেষে ৪৭ লাখ ৪৯ হাজার ৯৮০টি শেয়ার ৬ হাজার ৪৯৬ বার হাত বদল হয়। টাকার অঙ্কে মোট মূল্য ছিল ১৪ কোটি ২৭ লাখ ৪৯ হাজার ৫২০ টাকা। আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৮২ লাখ ৬৯ হাজার ৩৩০ টাকা বেশি। আগের কার্যদিবসে ( রোববার) মোট লেনদেন হয়েছিল ১৩ কোটি ৪৪ লাখ ৮০ হাজার ১৯০ টাকা। টপটেন গেইনারের ১০ কোম্পানির মধ্যে শীর্ষে ছিল পদ্মা বিচ হ্যাচারি। এ কোম্পানির দর বেড়েছে ১০ শতাংশ। অন্যদিকে দর হারানোর দিক থেকে শীর্ষে ছিল বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স। এ শেয়ারের দর কমেছে ৮ দশমিক ৫৭ শতাংশ।

Share
নিউজটি ৩৫২ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged