সূচক কমলেও বেড়েছে লেনদেন

প্রায় পৌনে ৪ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে সূচক

সময়: মঙ্গলবার, জানুয়ারি ৭, ২০২০ ৫:৪৭:৪১ অপরাহ্ণ


মো. সাজিদ খান : ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্য সূচক আজ ৩ বছর ৮ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে নেমে এসেছে । এর আগে ২০১৬ সালের ২৬ এপ্রিল এই সূচকের অবস্থান ছিল ৪ হাজার ২৮১ পয়েন্টে। আজ লেনদেনের শুরু থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত সূচকের স্বাভাবিক ওঠানামায় লেনদেন হতে দেখা গেছে। দুপুর ১২টার পর থেকেই একটানা সূচক কমে গেছে। এর ফলে সর্বনিম্ন অবস্থানে ডিএসইর মূল্য সূচক। আজ দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে সূচকের পাশাপাশি কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। এছাড়া উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ার দর কমার পাশাপাশি বাজার মূলধনও কমেছে। দিনশেষে আজ ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন কমেছে ৪৮ কোটি ৩৫ লাখ ৫২ হাজার ২৬০ টাকা ৯০ পয়সা। এদিন বাজার মূলধন কমেছে ৩ হাজার ৪৯ কোটি ৯৫ লাখ ৩২ হাজার ৫২১ টাকা ১৪ পয়সা। অন্যদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন কমেছে এক কোটি ৬০ লাখ ৫৯ হাজার ৮৭৯টাকা ২০ পয়সা। এদিন সিএসই’তে বাজার মূলধন কমেছে ৪ হাজার ৬০ কোটি ৭৩ লাখ ২৮ হাজার ৬৭৮ টাকা ৩০ পয়সা। সংশ্লিষ্ট স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, আজ ডিএসই’র ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৫০.৫২ পয়েন্ট কমে দাঁড়ায় ৪২৮১.৪৩ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ্্ সূচক ১০.১৫ পয়েন্ট কমে ৯৭২.৯৮ পয়েন্ট এবং ডিএসই৩০ সূচক ১৫.৬৩ পয়েন্ট কমে ১৪৩৬.২৬ পয়েন্টে দাঁড়ায়। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৫৪টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে বেড়েছে ৪২টির, কমেছে ২৬৯টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৪৩টি কোম্পানির শেয়ারের দর। এদিন ডিএসই’তে মোট ১১ কোটি ২১ লাখ ১৭ হাজার ৬৩৩টি শেয়ার এক লাখ ২২ হাজার ৪৮২ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৩২৭ কোটি ৪৬ লাখ ১৬ হাজার ৬৪৯ টাকা ৮০ পয়সা। আজ বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৩০ হাজার ৬৬২ কোটি ৮৬ লাখ ৯৭ হাজার ৪৮১ টাকা ১৯ পয়সা।
গতকাল ডিএসই’র ব্রড ইনডেক্স ৬৮.১৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়ায় ৪৩৩১.৯৫ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ্্ সূচক ১২.২৯ পয়েন্ট কমে ৯৮৩.১৩ পয়েন্ট এবং ডিএসই৩০ সূচক ২৮.৪১ পয়েন্ট কমে ১৪৫১.৮৯ পয়েন্টে দাঁড়ায়। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৫৫টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে বেড়েছে ৬৩টির, কমেছে ২৫৩টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৯টি কোম্পানির শেয়ারের দর। এদিন ডিএসই’তে মোট ১৩ কোটি ৩৮ লাখ ৫০ হাজার ৪০৭টি শেয়ার এক লাখ ১৪ হাজার ৪৯৫ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৩৭৫ কোটি ৮১ লাখ ৬৮ হাজার ৯১০ টাকা ৭০ পয়সা। ওইদিন বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৩৩ হাজার ৭১২ কোটি ৮২ লাখ ৩০ হাজার ২ টাকা ৩৩ পয়সা।
ক্যাটাগরিভিত্তিক লেনদেনের ক্ষেত্রে ডিএসই’তে আজ ‘এ’ ক্যাটাগরির ২৪৯টি কোম্পানির মধ্যে বেড়েছে ২২ট, কমেছে ১৯৭টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩০টির শেয়ার দর। ‘বি’ ক্যাটাগরির ৪৩টি কোম্পানির মধ্যে বেড়েছে ৭টি, কমেছে ৩৫টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১টির শেয়ার দর। ‘এন’ ক্যাটাগরির ১০টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ২টি, কমেছে ৭টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১টির। ‘জেড’ ক্যাটাগরির ৫২টি কোম্পানির মধ্যে বেড়েছে ১১টি, কমেছে ৩০টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ১১টির শেয়ার দর। এছাড়া, ৩৬টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের বেড়েছে ১টির, কমেছে ২০টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ১৫টির দর।
গতকাল ক্যাটাগরিভিত্তিক লেনদেনের ক্ষেত্রে ডিএসই’তে ‘এ’ ক্যাটাগরির ২৫০টি কোম্পানির মধ্যে বেড়েছে ৩৮টি, কমেছে ১৮৮টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৪টির শেয়ার দর। ‘বি’ ক্যাটাগরির ৪৩টি কোম্পানির মধ্যে বেড়েছে ৪টি, কমেছে ৩৩টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৬টির শেয়ার দর। ‘এন’ ক্যাটাগরির ১০টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ৩টি এবং কমেছে ৭টির শেয়ার দর। ‘জেড’ ক্যাটাগরির ৫২টি কোম্পানির মধ্যে বেড়েছে ১৮টি, কমেছে ২৫টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ৯টির শেয়ার দর। এছাড়া, ৩৭টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের বেড়েছে ৫টির, কমেছে ১৯টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ১৩টির দর।
আজ ‘এ’ ক্যাটাগরির ২৪৯ কোম্পানির মোট ৭ কোটি ২১ লাখ ৯৯ হাজার ৫২৫টি শেয়ার ৬৮ হাজার ৩১৩ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ২১৩ কোটি ৭৭ লাখ ৮৩ হাজার টাকা। ‘বি’ ক্যাটাগরির ৪৩ কোম্পানির এক কোটি ৫৮ লাখ ৩২ হাজার ৩৮৮টি শেয়ার ১৫ হাজার ৫৩৬বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৪০ কোটি ৫৩ লাখ ৭৮ হাজার টাকা। ‘এন’ ক্যাটাগরির ১০ কোম্পানির এক কোটি ৬৩ লাখ ৯৯ হাজার ১৫৬টি শেয়ার ৩১ হাজার ৯৯২ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৪৭ কোটি ৭১ লাখ ৩৩ হাজার টাকা। ‘জেড’ ক্যাটাগরির ৫২ কোম্পানির ৬৫ লাখ ১০ হাজার ৭৬২টি শেয়ার ৬ হাজার ৫৭৬ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ১০ কোটি ৪২ লাখ ৬০ হাজার টাকা। এছাড়া ৩৬টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ৫৮ লাখ ২১ হাজার ৬৫৭টি ইউনিট এক হাজার ৬৮৫ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৩ কোটি ৬৫ লাখ টাকা।
গতকাল ‘এ’ ক্যাটাগরির ২৫০ কোম্পানির মোট ৮ কোটি ৯৫ লাখ ৫৪ হাজার ৩২৭টি শেয়ার ৭৯ হাজার ৮৬৬ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ২৭০ কোটি ১৩ লাখ ৫৭ হাজার টাকা। ‘বি’ ক্যাটাগরির ৪৩ কোম্পানির এক কোটি ৮৩ লাখ ৩০ হাজার ৭৪৭টি শেয়ার ১৬ হাজার ৩৩৬বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৪০ কোটি ২১ লাখ ৮৫ হাজার টাকা। ‘এন’ ক্যাটাগরির ১০ কোম্পানির এক কোটি ৫৫ লাখ ৩০ হাজার ৩৯টি শেয়ার ১২ হাজার ৩১৮ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৩৯ কোটি ২৯ লাখ ৯৪ হাজার টাকা। ‘জেড’ ক্যাটাগরির ৫২ কোম্পানির ৪০ লাখ ৬২ হাজার ৯৮৬টি শেয়ার ৫ হাজার ৮৬ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৮ কোটি ৫৬ লাখ ২০ হাজার টাকা। এছাড়া ৩৭টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ৭৮ লাখ ৬০ হাজার ৯৬৮টি ইউনিট এক হাজার ৯৬৪ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৫ কোটি ৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা।
প্রধান খাতগুলোর মধ্যে আজ ব্যাংক খাতে ২ কোটি ১৯ লাখ ১৮ হাজার ৪৭১টি শেয়ার ৭ হাজার ১১৩বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৪৬ কোটি ৩২ লাখ ৪০ হাজার টাকা। বীমা খাতে এক কোটি ২৯ লাখ ৭৭ হাজার ৫০৯টি শেয়ার ১৩ হাজার ৮৯০বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৪৩ কোটি ৭৮ লাখ ৪০ হাজার টাকা। আর্থিক খাতে ৫০ লাখ ৭১ হাজার ৯১০টি শেয়ার ৩ হাজার ৬৯বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৬ কোটি ৮৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা। প্রকৌশল খাতে ১ কোটি ৪১ লাখ ৭৮ হাজার ১৫৭টি শেয়ার ১৬ হাজার ৩৩৪বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৪৩ কোটি ৭১ লাখ টাকা। ওষুধ ও রসায়ন খাতে ৫৪ লাখ ৫৭ হাজার ৮০৩টি শেয়ার ৯ হাজার ৩৭৪বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ২৩ কোটি ৬৬ লাখ ৪০ হাজার টাকা। বস্ত্র খাতে ১ কোটি ৬৯ লাখ ৬৮ হাজার ৫৮৯টি শেয়ার ১৩ হাজার ৪৩৩বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ২৩ কোটি ৫০ লাখ ৯০ হাজার টাকা। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ৩৫ লাখ ৯৩ হাজার ৫৪৫টি শেয়ার ৫ হাজার ৮৭০বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ১৮ কোটি ৮৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা।
গতকাল ব্যাংক খাতে ২ কোটি ৬৭ লাখ ২ হাজার ৪৬০টি শেয়ার ৮ হাজার ৬৪৪বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৫৫ কোটি ৮ লাখ ১০ হাজার টাকা। বীমা খাতে এক কোটি ৮ লাখ ৮৩ হাজার ৮৬১টি শেয়ার ১৩ হাজার ১০২বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৩৭ কোটি ৫৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা। আর্থিক খাতে ৬৪ লাখ ২৬ হাজার ৩২৫টি শেয়ার ৪ হাজার ৬৩৬বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৮ কোটি ৯৬ লাখ ১০ হাজার টাকা। প্রকৌশল খাতে ১ কোটি ৭১ লাখ ৪৪ হাজার ১৩২টি শেয়ার ১৭ হাজার ৮৯৮বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৫১ কোটি ৪০ লাখ ২০ হাজার টাকা। ওষুধ ও রসায়ন খাতে ৭৩ লাখ ২৩ হাজার ৬৮৯টি শেয়ার ১১ হাজার ২৫০বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৩৪ কোটি ৩২ লাখ ১০ হাজার টাকা। বস্ত্র খাতে ২ কোটি ১৩ লাখ ৮৮ হাজার ৩৫৬টি শেয়ার ১৪ হাজার ৭১৮বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ২৯ কোটি ৯৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ৫৪ লাখ ৫৩ হাজার ৫৭৮টি শেয়ার ৭ হাজার ১৪৫বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৩০ কোটি ৪১ লাখ ৪০ হাজার টাকা।
অন্যদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) আজ সিএসই’র সার্বিক সূচক ২২৩.১১ পয়েন্ট কমে দাঁড়ায় ১৩০১০.৪৬ পয়েন্টে। সিএসইএক্স সূচক ১৩৫.৯৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়ায় ৭৮৮১.২২ পয়েন্টে। আজ মোট ২৪৮টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে বেড়েছে ৪১টির, কমেছে ১৮৬টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২১ কোম্পানির শেয়ার দর। আর দিন শেষে ৬১ লাখ ৪৭ হাজার ৩৮টি শেয়ার ও ইউনিট ১৫ হাজার ৯০ বার হাতবদল হয়েছে, যার মূল্য ছিল ১৪ কোটি ৫৫ লাখ ৬৮ হাজার ৯৪১ টাকা। আজ সিএসই’র বাজারমূলধন ছিল ২ লাখ ৬০ হাজার ৮৪৯ কোটি ৯৩ লাখ ৮৫ হাজার ৭৮৭ টাকা ২০ পয়সা।
গতকাল সিএসই’তে সার্বিক সূচক ১৪৮.০২ পয়েন্ট কমে দাঁড়ায় ১৩২৩৩.৫৮ পয়েন্টে। সিএসইএক্স সূচক ৯২.১০ পয়েন্ট কমে দাঁড়ায় ৮০১৭.১৭ পয়েন্টে। ওইদিন মোট ২৪০টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে বেড়েছে ৫০টির, কমেছে ১৬৩টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৭ কোম্পানির শেয়ার দর। আর দিন শেষে ৬৬ লাখ ১০ হাজার ২০৬টি শেয়ার ও ইউনিট ১০ হাজার ৫৪ বার হাতবদল হয়েছে, যার মূল্য ছিল ১৬ কোটি ১৬ লাখ ২৮ হাজার ৮২০ টাকা ২০ পয়সা। আজ সিএসই’র বাজারমূলধন ছিল ২ লাখ ৬৪ হাজার ৯১০ কোটি ৬৭ লাখ ১৪ হাজার ৪৬৫ টাকা ৫০ পয়সা।

দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৪০০ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged