বেহাল দশা বস্ত্র খাতের অধিকাংশ কোম্পানির

সময়: রবিবার, অক্টোবর ২৭, ২০১৯ ৯:১৯:৪৮ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের শেয়ার ছেড়ে যাচ্ছে বিদেশিরা। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদেরও আগ্রহ কমছে এসব শেয়ারে। প্রত্যাশিত মুনাফা না পেয়ে সাধারণ বিনিয়োগকারীরাও হতাশ। মন্দা বাজারে এ খাতের বেশ কিছু কোম্পানির দর ফেস ভ্যালুর নিচে। সব মিলিয়ে বস্ত্র খাতের কোম্পানিগুলোর বেহাল দশা। বিশ্লেষকরা বলছেন, বস্ত্র খাতের প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে বিনিয়োগকারীরা আশানুরূপ গেইন করতে না পারায় আস্থার সংকট দেখা দিয়েছে। ভালো পারফরমেন্সের মাধ্যমে কোম্পানিগুলোর এ পরিস্থিতি থেকে উত্তোরণ সম্ভব।
ইভিন্স টেক্সটাইলের শেয়ার দর সর্বশেষ ৯ টাকা ৩০ পয়সায় লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ার দর গত এক বছরের সর্বনিম্ন ৮ টাকা ৭০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১৪ টাকায় লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটি গত সমাপ্ত বছরে মুনাফার পরও ‘নো ডিভিডেন্ড’ ঘোষণা করেছে। এতে বিনিয়োগকারীরা হতাশ হয়েছে। নো ডিভিডেন্ড ঘোষণা দিয়ে ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে চলে গেছে কোম্পানিটি। এ ঘটনার পর কোম্পানির প্রতি বিনিয়োগকারীরা আস্থা হারাচ্ছে। এরপর থেকে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে থাকা শেয়ার ছেড়ে দেয়া শুরু করেছে। শেয়ার দর কমে ফেসভ্যালুর নিচে চলে গেছে।
সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইলস লিমিটেডের শেয়ার দর সর্বশেষ ১ টাকা ৯০ পয়সায় লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ার দর গত এক বছরে সর্বনিম্ন ১ টাকা ৮০ পয়সা এবং সর্বোচ্চ ৫ টাকা ৮০ পয়সায় লেনদেন হয়েছে। বেশ আলোচনার মধ্য দিয়ে কোম্পানিটি প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) মাধ্যমে বাজারে তালিকাভুক্ত হয়েছে। অথচ মালিকানা দ্বন্দ্বসহ নানা কারণে কোম্পানিটি বন্ধ হয়ে গেছে। এরপর থেকে কোম্পানির শেয়ার দরে পতন শুরু হয়। যা বর্তমানে সর্বনিম্ন দরে অবস্থান করছে।
শুধু ইভিন্স টেক্সটাইল, সিএন্ডএ টেক্সটাইলই নয় বস্ত্র খাতের তালিকাভুক্ত প্রায় ৩৫ শতাংশ কোম্পানির দর ফেসভ্যালুর নিচে অবস্থান করছে। এছাড়া যেসব কোম্পানির দর ফেসভ্যালুর নিচে অবস্থান করছে সেগুলো হচ্ছে- আলিফ ম্যানুফেকচারিং কোম্পানি লিমিটেড, অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ঢাকা ডাইং, ডেল্টা স্পিনার্স, ফ্যামিলিটেক্স (বিডি) লিমিটেড, জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশন লিমিটেড, ম্যাকসন্স স্পিনিং মিলস, মেট্রো স্পিনিং লিমিটেড, মোজাফ্ফর হোসেইন স্পিনিং মিলস, মিথুন নিটিং অ্যান্ড ডাইং লিমিটেড, নূরানী ডাইং, রিজেন্ট টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, আরএন স্পিনিং মিলস, তাল্লু স্পিনিং মিলস, তুং হাই নিটিং অ্যান্ড ডাইং, জাহিন স্পিনিং, জাহিনটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বস্ত্র খাতের যেসব প্রতিষ্ঠান তালিকাভুক্ত হয়েছে তার বেশিরভাগেরই পারফরমেন্স দুর্বল। এসব কোম্পানি বাজারে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের আগে তাদের আর্থিক প্রতিবেদন ফুলিয়ে ফাপিয়ে দেখিয়েছে। বাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের পর তাদের প্রকৃত দুর্বল আর্থিক চিত্র প্রকাশ পেয়েছে। এসব কোম্পানির অধিকাংশই প্রতিযোগিতার বাজারে হারিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া কিছু কোম্পানি মালিকানার দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েছে। এসব কারণে বস্ত্র খাতের অধিকাংশ কোম্পানির পারফরমেন্স দুর্বল। তাদের দুর্বল পারফরমেন্সের কারণে পুরো বাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। তবে ভালো পারফরমেন্সের মাধ্যমে এসব কোম্পানি বাজারে আস্থা ফেরাতে পারে। যা বাজার স্থিতিশীলতায় সহায়ক হতে পারে বলে মনে করছেন তারা।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৪০১ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged