মেগা প্রজেক্টে শুল্ক ও ভ্যাট ছাড়ের কারণে রাজস্ব ঘাটতি

সময়: বুধবার, জুলাই ৩১, ২০১৯ ৬:১২:৩৮ পূর্বাহ্ণ


এম সাইফুল শুভ : চলমান মেগা প্রজেক্টে পণ্য আমদানিতে শুল্ক ও ভ্যাট ছাড় এবং কর অব্যাহতির কারণে কাক্সিক্ষত পরিমাণ রাজস্ব আদায় হচ্ছে না। এছাড়া আমদানি-রফতানিতে কিছুটা শ্লথগতি থাকায় রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ব্যাহত হচ্ছে। সদ্য সমাপ্ত অর্থবছরে ৫০ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব ঘাটতির জন্য এসবকেই কারণ মনে করছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এছাড়া শুধু সরকারি অফিসগুলোতেই এনবিআর-এর পাওনা ৪০ হাজার কোটি টাকার বেশি। রাজস্ব বোর্ড ওই বিশাল অঙ্কের টাকা আদায় করতে পারছে না। জানা গেছে, গত কয়েক বছর ধরেই রাজস্ব আদায়ে লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হচ্ছে না। এর কারণ হিসেবে এনবিআর বলছে- পদ্মা সেতু, মেট্রো রেল, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ দেশে বেশ কিছু বড় প্রকল্প হচ্ছে। সবগুলো বড় প্রকল্পে পণ্য আনতে শুল্ক, মূসক ও কর রেয়াত দেয়া হয়েছে। ফলে এখানে সরকারের বড় একটি অংশই রাজস্বের বাইরে থাকছে। পাশাপাশি সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে যে ৪০ হাজার কোটির বেশি বকেয়া রয়েছে। সরকারি অফিসগুলো সাধারণত রাজস্ব দিতে গড়িমসি করে থাকে। এনবিআরও সরকারি অফিসের বিরুদ্ধে কোনো কঠিন ব্যবস্থা নিতে পারছে না। ফলে এনবিআরকে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী কর আদায়ে ব্যর্থতার গ্লানি টানতে হচ্ছে। এ নিয়ে চাপের মধ্যে রয়েছে এনবিআর।
জানা যায়, বিগত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড নিয়ন্ত্রিত মোট রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ হচ্ছে ২ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা। সংশোধিত বাজেটে রাজস্ব আহরণের প্রাক্কলন করা হয়েছিল ২ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকা। গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এনবিআরের জন্য নির্ধারিত ২ লাখ ৯৬ হাজার ২০১ কোটি টাকার মূল লক্ষ্যমাত্রা থেকে ১৬ হাজার ২০১ কোটি টাকা কমিয়ে নতুন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল।

গত ১৩ জুন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপন করেন। বাজেটে মোট রাজস্ব আয় ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা। এর মধ্যে এনবিআর আওতাভুক্ত রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৩ লাখ ২৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। এছাড়া এনবিআরবহির্ভূত সূত্র থেকে কর রাজস্ব ধরা হয়েছে ১৪ হাজার ৫০০’ কোটি টাকা। আর করবহির্ভূত খাত থেকে রাজস্ব আয় ধরা হয়েছে ৩৭ হাজার ৭১০ কোটি টাকা।
এ বিষয়ে এনবিআর সদস্য মো. মেফতাহ উদ্দিন খান ‘দৈনিক শেয়ারবাজার’কে বলেন, কিছু পলিসিগত সমস্যা রয়েছে। রাজস্ব আদায়ের জন্য সেগুলো পরিবর্তন করা হবে।’ তবে তিনি সরকারি অফিসের পাওনা বা মেগা প্রজেক্ট সম্পর্কে কিছু বলতে রাজি হননি।

দৈনিক শেয়ারবাজার /এসএ/খান

Share
নিউজটি ৪৯৭ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged