সূচকের বড় উত্থানেও বিনিয়োগকারীদের মানবন্ধন

সময়: বুধবার, জুলাই ২৪, ২০১৯ ৪:২৫:১৫ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : অব্যাহত পতনের পর গতকাল মঙ্গলবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সূচকের বড় উত্থান হয়েছে। এদিন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান সূচক ডিএসইএক্স বিগত সাড়ে ৬ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ বেড়ে ১১১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। তবে সূচকের এ উত্থানকে স্বাভাবিক বলে মনে করেনি বিনিয়োগকারীরা। যার পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ডিএসই’র সামনে ‘বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদ’-এর ব্যানারে বিনিয়োগকারীরা বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেন।
এ সময় বিনিয়োগকারীরা জানান, শেয়ারবাজারে সূচকের ধারাবাহিক পতনের পর হঠাৎ একদিনে এতো বেশি উত্থান স্বাভাবিক বলে মনে হচ্ছে না। সূচকের এ ধরনের উত্থান ‘মেকিং প্লে’ বলে মনে হচ্ছে। এর সঙ্গে কুচক্রীরা জড়িত থাকতে পারে।
মানববন্ধনে মহসিন খান নামের এক বিনিয়োগকারী বলেন, কুচক্রী মহলের হাত যতোই শক্ত থাকুক, সরকার যেসব নীতিমালা দিয়েছে সেগুলো বাস্তবায়ন করা হলে শেয়ারবাজারের অবস্থা ভালো হবেই। আর শেয়ারবাজার ভালো হলে দেশের অর্থনীতিও ভালো হবে। আর দেশের অর্থনীতি ভালো হলে দেশও ভালোভাবে চলবে।
প্রধানমন্ত্রী এবং অর্থমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে ওই বিনিয়োগকারী আরো বলেন, শেয়ারবাজারের জন্য যেসব আইন সরকার করেছে, সেগুলো বাস্তবায়ন করলে বাজার তার নিজস্ব গতিতে চলবে। কাউকে চালাতে হবে না। তাছাড়া একদিন ১০০ পয়েন্ট বাড়লেও পরের দিনর আবার ১০০ পয়েন্ট কমবে।
অনুষ্ঠানে পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সভাপতি মিজান-উর-রশিদ চৌধুরী বলেন, আইন অনুযায়ী পরিচালকদের শেয়ার ধারণে বাধ্য করতে হবে। তাছাড়া যেসব কোম্পানির শেয়ার ফেসভ্যালুর নিচে লেনদেন হচ্ছে, সেগুলোর জন্য বাইব্যাক আইন করতে হবে। এই আইনের মাধ্যমে কোম্পানির পরিচালকরা শেয়ার কিনে নেয়ার বিধি-বিধান চালু করতে হবে।
তিনি আরো বলেন, বাজারের সূচক যেভাবে বেড়েছে, লেনদেন সেই হারে বাড়েনি। তাই আমাদের কাছে মনে হচ্ছে বাজারকে কৃত্রিমভাবে বাড়ানো হয়েছে। আমরা কৃত্রিম বাজার চাই না, স্বাভাবিক বাজার চাই। এভাবে অস্বাভাবিক উত্থান-পতন মেনে নেয়া যায় না। তাই যতোদিন বাজার স্বাভাবিক অবস্থায় না ফিরবে, ততোদিন আমাদের আন্দোলন চলবে।

দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩৩২ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged