সূচক কমলেও বেড়েছে লেনদেন

সূচকের সামান্য উত্থানে লেনদেন বেড়েছে

সময়: বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯ ৬:২৭:৩৭ অপরাহ্ণ


মো. সাজিদ খান : সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসেও ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের মিশ্র প্রবণতায় লেনদেন হয়েছে। তিনটি সূচকের মধ্যে ডিএসইর প্রধান সূচক বাড়লেও অপর দুইটি কমেছে। আজ নতুন কোম্পানি রিংসাইন টেক্সটাইলের লেনদেন শুরু হয়েছে শেয়ারবাজারে। যার প্রভাবে সূচক ও লেনদেন সামান্য বেড়েছে। আজ লেনদেনের প্রথম ২ মিনিটে ১০.৩০ পয়েন্ট বেড়েছে প্রধান সূচক। এরপর টানা বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত সূচক কমতে দেখা গেছে। পরবর্তীতে সূচক ওঠানামার মধ্য দিয়ে লেনদেন চলে। এদিন লেনদেন শেষে সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আজ ডিএসই’তে লেনদেন বেড়েছে ৫৫ কোটি ৩৭ লাখ ৬৫ হাজার ৫০৯ টাকা ৬০ পয়সা। প্রধান খাতগুলোর মধ্যে লেনদেন বেড়েছে ব্যাংক, বীমা, আর্থিক, প্রকৌশল, বস্ত্র এবং বিদ্যুৎ ও জ্বালানী খাতে লেনদেন বাড়লেও কমেছে ওষুধ ও রসায়ন খাতে। এছাড়া লেনদেন কমেছে মিউচ্যুয়াল ফান্ডের।
বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, আজ ডিএসই’র ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ২ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়ায় ৪৫১৪ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ্্ সূচক ০.৮৬ পয়েন্ট কমে ১০১৬ পয়েন্ট এবং ডিএসই৩০ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়ায় ১৫৪৮ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৫৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৯টির, কমেছে ১২৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৮টির। এদিন ডিএসই’তে মোট ১৩ কোটি ১৮ লাখ ২৯ হাজার ৩৪০টি শেয়ার এক লাখ ১৫ হাজার ১৫৯ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৩৪৯ কোটি ৫৯ লাখ ২৫ হাজার ৮৬০ টাকা ২০ পয়সা। আজ বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৪৩ হাজার ৬৯৭ কোটি ৫৭ লাখ ৮৮ হাজার ৮৭০ টাকা ৩১ পয়সা।
গতকাল ডিএসই’র ব্রড ইনডেক্স ৫ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়ায় ৪৫১২ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ্্ সূচক ৫ পয়েন্ট বেড়ে ১০১৭ পয়েন্ট এবং ডিএসই ৩০ সূচক ৩ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়ায় ১৫৫২ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৫১টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১২৩টির, কমেছে ১৬৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৬৩টির। ওইদিন ডিএসই’তে মোট ১০ কোটি ৯৪ লাখ ৭১ হাজার ৪১৭টি শেয়ার ৯৮ হাজার ৫০৫ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ২৯৪ কোটি ২১ লাখ ৪৯ হাজার ৩৫০ টাকা ৬০ পয়সা। ওইদিন বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৪৩ হাজার ৬৫ কোটি ৭৮ লাখ ৩২ হাজার ৭৩২ টাকা ৭৩ পয়সা।
ক্যাটাগরিভিত্তিক লেনদেনের ক্ষেত্রে ডিএসই’তে আজ ‘এ’ ক্যাটাগরির ২৬০টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ১২৪টি, কমেছে ৯৯টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৭টির দর। ‘বি’ ক্যাটাগরির ৩৩টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ১৯টি, কমে ৯টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ৫টির। ‘এন’ ক্যাটাগরির ১০টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ৫টি এবং কমেছে ১০টি। ‘জেড’ ক্যাটাগরির ৪৭টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ২১টি, কমেছে ১৩টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ১৬টির। এছাড়া, ৩৬টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের দর বেড়েছে ৬টির, কমেছে ১৩টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ১৩টির।
গতকাল ক্যাটাগরিভিত্তিক লেনদেনের ক্ষেত্রে ডিএসই’তে ‘এ’ ক্যাটাগরির ২৬২টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ৯৫টি, কমেছে ১২৬টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ৪১টির দর। ‘বি’ ক্যাটাগরির ৩৩টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ১৩টি, কমেছে ১৩টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ৭টির। ‘এন’ ক্যাটাগরির ৯টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ৫টি, কমেছে ২টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ২টির। ‘জেড’ ক্যাটাগরির ৪৭টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ১০টি, কমেছে ২৪টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ১৩টির। এছাড়া, ৩৭টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের দর বেড়েছে ১২টির, কমে ৬টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ১৯টির।

আজ ‘এ’ ক্যাটাগরির ২৬২ কোম্পানির মোট ৮ কোটি ৮৯ লাখ ৭০ হাজার ৪২৯টি শেয়ার ৮০ হাজার ২৯০ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ২৪৪ কোটি ৪১ লাখ ৫৬ হাজার টাকা। ‘বি’ ক্যাটাগরির ৩৩ কোম্পানির মোট বাজারমূল্য এক কোটি ৫১ লাখ ৮৩ হাজার ৩৮৭টি শেয়ার ১৫ হাজার ৩৭বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য বাজারমূল্য ৪১ কোটি ৮৮ লাখ ৬৮ হাজার টাকা। ‘এন’ ক্যাটাগরির ১০ কোম্পানির মোট এক কোটি ৮২ লাখ ৮০ হাজার ৪৩৩টি শেয়ার ১৫ হাজার ৫৫৮ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য বাজারমূল্য ৩৩ কোটি ৮৫ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। ‘জেড’ ক্যাটাগরির ৪৭ কোম্পানির মোট ৪৮ লাখ ৪৫ হাজার ৮৯৯টি শেয়ার ৪ হাজার ২২৬ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৭ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। এছাড়া ৩৬টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের এক কোটি ১৭ লাখ ৫০ হাজার ৯৯৮টি ইউনিট ৩ হাজার ২১১ বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৯ কোটি ৪৩ লাখ ৯০ হাজার টাকা।
গতকাল ‘এ’ ক্যাটাগরির ২৬২ কোম্পানির মোট ৭ কোটি ৫৫ লাখ ১৯ হাজার ৬৫৯টি শেয়ার ৭৪ হাজার ২৮৪ বার হাতবদল হয়, যার মোট বাজারমূল্য ২০৩ কোটি ৭৮ লাখ ৯০ হাজার টাকা। ‘বি’ ক্যাটাগরির ৩৩ কোম্পানির মোট ১ কোটি ৭৯ লাখ ৫০ হাজার ১২০টি শেয়ার ১৪ হাজার ২৩৭বার হাতবদল হয়, যার মোট বাজার মূল্য ৪৪ কোটি ১২ লাখ ৩ হাজার টাকা। ‘এন’ ক্যাটাগরির ৯ কোম্পানির মোট ৬২ লাখ ৫০ হাজার ৯৫৫টি শেয়ার ৪ হাজার ৪১২ বার হাতবদল হয়, যার মোট বাজারমূল্য ১৫ কোটি ২৮ লাখ ৬৯ হাজার টাকা। ‘জেড’ ক্যাটাগরির ৪৯ কোম্পানির মোট ৫২ লাখ ৯১ হাজার ৩১৫টি শেয়ার ৪ হাজার ৯৫৯ বার হাতবদল হয়, যার মোট বাজারমূল্য ৯ কোটি ৩০ লাখ ৪৬ হাজার টাকা। এছাড়া ৩৭টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের এক কোটি ৩৭ লাখ ১১ হাজার ৮৪টি ইউনিট ৪ হাজার ৪৬৬ বার হাতবদল হয়, যার মোট বাজারমূল্য ১২ কোটি ৭১ লাখ টাকা।
প্রধান খাতগুলোর মধ্যে আজ ব্যাংক খাতে এক কোটি ৩৯ লাখ ৭১ হাজার ৫০টি শেয়ার ৫ হাজার ৭বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ২০ কোটি ৮৫ লাখ ৮০ হাজার টাকা। বীমা খাতে ২ কোটি ৪৫ লাখ ৩৭ হাজার ৫৩৪টি শেয়ার ২০ হাজার ৬১বার হাতবদল হয়, যার মোট ৭৪ কোটি ২৩ লাখ টাকা। আর্থিক খাতে ৭০ লাখ ১২ হাজার ৭২৭টি শেয়ার ৩ হাজার ৬১২বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৯ কোটি ৪১ লাখ ৪০ হাজার টাকা। প্রকৌশল খাতে ৭৪ লাখ ৬১ হাজার ১৭৬টি শেয়ার ১৪ হাজার ৭৭২বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৩৩ কোটি ৫১ লাখ ৭০ হাজার টাকা। ওষুধ ও রসায়ন খাতে ৫১ লাখ ৭১ হাজার ৯৯৮টি শেয়ার ১০ হাজার ৩৭২বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ২৮ কোটি ৯৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা। বস্ত্র খাতে ৩ কোটি ৫৮ লাখ ৪৪ হাজার ১৭৫টি শেয়ার ২৪ হাজার ৯৪৩বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৫৭ কোটি ৯২ লাখ ৮০ হাজার টাকা। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ৫৮ লাখ ৮৪ হাজার ৭৯২টি শেয়ার ৬ হাজার ৯২২বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ২৭ কোটি ৪৮ লাখ ৯০ হাজার টাকা।
গতকাল ব্যাংক খাতে এক কোটি ৮ লাখ ৮ হাজার ১৯৯টি শেয়ার ৪ হাজার ৪০৫বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ১৬ কোটি ৪৩ লাখ ১০ হাজার টাকা। বীমা খাতে এক কোটি ৮১ লাখ ৮৯ হাজার ২৩৪টি শেয়ার ১৬ হাজার ৫৭বার হাতবদল হয়, যার মোট ৫৫ কোটি ৯৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা। আর্থিক খাতে ৫৭ লাখ ৮২ হাজার ৯৯১টি শেয়ার ৩ হাজার ১৫৭বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৮ কোটি ৯ লাখ ৮০ হাজার টাকা। প্রকৌশল খাতে ৬১ লাখ ৭৩ হাজার ৩টি শেয়ার ১২ হাজার ৯৩৯বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ২৩ কোটি ৩৮ লাখ ৪০ হাজার টাকা। ওষুধ ও রসায়ন খাতে ৫২ লাখ ৭৫ হাজার ১৮৪টি শেয়ার ১০ হাজার ৯০৫বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৩০ কোটি ৪১ লাখ ১০ হাজার টাকা। বস্ত্র খাতে ২ কোটি ৪৯ লাখ ৭১ হাজার ২৬৭টি শেয়ার ১৫ হাজার ২৩৪বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ৪০ কোটি ৯৮ লাখ ১০ হাজার টাকা। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ৩৬ লাখ ১৬ হাজার ৪০৯টি শেয়ার ৫ হাজার ৭৮৯বার হাতবদল হয়, যার মোট মূল্য ১৮ কোটি ৮২ লাখ ১০ হাজার টাকা।

অন্যদিকে, অন্যদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) আজ সিএসই’র সার্বিক সূচক ১৩ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়ায় ১৩ হাজার ৭৩৩ পয়েন্টে। সিএসইএক্স সূচক ৭ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়ায় ৮ হাজার ৩৩১ পয়েন্টে। আজ মোট ২৩৬টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১০৯টির, কমেছে ৯০টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৭ কোম্পানির শেয়ার দর। আর দিন শেষে ১ কোটি ৩০ লাখ ১ হাজার ৪০১টি শেয়ার ও ইউনিট ১০ হাজার ১৮১ বার হাতবদল হয়েছে, মোট মূল্য ২৬ কোটি ৪৮ লাখ ১৭ হাজার ১৭৬ টাকা। আগের কার্যদিবসের তুলনায় ২ কোটি ৭৬ লাখ ৪৯ হাজার ৯৯৭ টাকা বেশি। বাজার মূলধন ছিল ২ লাখ ৭৩ হাজার ৬০ কোটি ২৪ লাখ ২০ হাজার টাকা।
গতকাল সিএসইতে সার্বিক সূচক ৩৬ পয়েন্ট বেড়ে ১৩ হাজার ৭২০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছিল। সিএসইএক্স সূচক ২২ পয়েন্ট বেড়ে ৮ হাজার ৩২৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছিল। মোট ২৩২টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছিল। এর মধ্যে দর বেড়েছিল ৯১টির, কমেছিল ১০৫টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৬ কোম্পানির শেয়ার দর। আর দিন শেষে ৭৯ লাখ ৯৫ হাজার ৮৩০টি শেয়ার ও ইউনিট ৪ হাজার ৬৯২ বার হাতবদল হয়েছিল, মোট মূল্য ছিল ২৩ কোটি ৭১ লাখ ৬৭ হাজার ১৭৯ টাকা। বাজার মূলধন ছিল ২ লাখ ৭২ হাজার ১২৭ কোটি ৫৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩৬০ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged