পুঁজিবাজারের জন্য হাজার কোটি টাকার বন্ড

সোনালী ছাড়া অপর রাষ্ট্রায়ত্ত চার ব্যাংকের সাড়া নেই

সময়: রবিবার, অক্টোবর ২৭, ২০১৯ ৯:১৮:৩১ পূর্বাহ্ণ


সাইফুল শুভ : পুঁজিাবাজারের চলমান মন্দাবস্থায় সহায়তা দিতে এক হাজার কোটি টাকার বন্ডে বিনিয়োগের নির্দেশ দিয়েছিল অর্থ মন্ত্রণালয়। সে আহ্বানে এখনো পর্যন্ত সোনালী ব্যাংক ছাড়া আর কেউই সাড়া দেয়নি। অর্থ মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অনুযায়ী চলতি মাসেই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর এ খাতে টাকা দেয়ার কথা ছিল।
জানা গেছে, সোনালী, জনতা, রূপালী, অগ্রণী ও বাংলাদেশ ডেভেলমেন্ট ব্যাংক-কে ২০০ কোটি টাকা করে মোট এক হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগের নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। রাষ্ট্রায়ত্ত বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি)-এর মাধ্যমে সম্পূর্ণ টাকা পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করার নির্দেশনা রয়েছে। সে অনুযায়ী গত ১৪ অক্টোবর সোনালী ব্যাংক ২০০ কোটি টাকার চেক আইসিবি’র কাছে হস্তান্তর করে। অন্যান্য ব্যাংকগুলোকেও দ্রুত চেক প্রদানের জন্য অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু অন্যান্য ব্যাংকগুলো থেকে আশানুরূপ সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না। তবে আইসিবি প্রতিদিনই যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে।
এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের (এফআইডি) একজন কর্মকর্তা ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন’-কে বলেন, চলতি মাসের মধ্যে এ টাকা পাওয়ার কথা থাকলেও আগামী মাসের মধ্যে পাওয়া যাবে কি-না সেটি নিয়েও সন্দেহ আছে। সরকারের সিদ্ধান্তের পরও কেন ব্যাংকগুলো এগিয়ে আসছে না সেটি বোধগম্য নয়। তবে ব্যাংকগুলো যেহেতু প্রতিশ্রুতিবদ্ধ অবশ্যই দিবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন এই কর্মকর্তা।
আইসিবি সূত্র জানিয়েছে, সোনালী ব্যাংকের চেক হস্তান্তরের পর আইসিবি পুরো টাকাই সেকেন্ডারি বাজারে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয়। সে প্রেক্ষিতে আইসিবি বিনিয়োগ শুরু করেছিল। কিন্তু অন্যান্য ব্যাংকগুলো এগিয়ে না আসায় মাঝপথে অনেকটা হোঁচট খেয়েছে আইসিবি। বন্ডের মাধ্যমে ব্যাংকগুলো থেকে সংগ্রহকৃত পুরো এক হাজার কোটি টাকাই পুঁজিবাজারে সেকেন্ডারি মার্কেটে বিনিয়োগ করা হবে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে অগ্রণী ব্যাংকের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন’-কে বলেন, অগ্রণী ব্যাংক সব সময় পুঁজিবাজারকে সহযোগিতা করে। সরকারের কোনো সিদ্ধান্তের বাইরে কাজ করে না। তবে এ বিষয়টি এ মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না।
এদিকে একাধিক রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের সূত্র বলছে, অনেক ব্যাংককেই এখন তারল্য সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। ঋণখেলাপীদের ভাবে নুয়ে পড়েছে। এর মধ্যে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের জন্য অর্থ ছাড় দেয়ার জন্য কিছু সময় লাগতে পারে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে আইসিবি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো আবুল হোসেন ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিনকে বলেন, এখন পর্যন্ত সোনালী ব্যাংক ছাড়া আর কোনো টাকা পাওয়া যায়নি। কোনো অগ্রগতি রয়েছে কি-না জানতে চাইলে তিনি আর কিছু বলতে রাজি হননি।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩২৯ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged