১৬ কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ

সময়: বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ৩১, ২০১৯ ৭:১৫:২৩ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক: তৃতীয় প্রান্তিক (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ১৬ কোম্পানি। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথা জানা গেছে।

ফার্স্ট ফাইন্যান্স: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১৩ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর শেয়ারপ্রতি আয় ছিল ১ টাকা ১৭ পয়সা।
এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান (ইপিএস) হয়েছে ৩ টাকা ২৯ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি লোকসান (ইপিএস) হয়েছিল ৩ টাকা ১৬ পয়সা। এছাড়া শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৪ টাকা ১০ পয়সা।

আইডিএলসি: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬৮ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর শেয়ারপ্রতি আয় ছিল ১ টাকা ৮৮ পয়সা। এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ টাকা ৪৭ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছিল ৪ টাকা ৮৩ পয়সা।
একই সময় কোম্পানিটির এককভাবে শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে (ইপিএস) ৩ টাকা ২৪ পয়সা, গত বছর একই সময় ছিল ৩ টাকা ২২ পয়সা। আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি এককভাবে সম্পদ হয়েছে ২৮ টাকা ৯৯ পয়সা সমন্বিতভাবে হয়েছে ৩৬ টাকা ১৪ পয়সা।

ফাস ফাইন্যান্স: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর শেয়ারপ্রতি আয় ছিল ৩০ পয়সা।
এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৫ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছিল ৩৫ পয়সা। এছাড়া শেয়ারপ্রতি সমন্বিত সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৩ টাকা ৬৬ পয়সা।

সোনারবাংলা ইন্স্যুরেন্স: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯১ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর শেয়ারপ্রতি আয় ছিল ৪৯ পয়সা। এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৭০ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছিল ১ টাকা ২৫ পয়সা।
একই সময়ে শেয়ারপ্রতি সম্পদ হয়েছে ১৭ টাকা ৮৯ পয়সা।

প্রাইম ইন্স্যুরেন্স: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান (ইপিএস) হয়েছে ২০ পয়সা। একই সময়ে আগের ছিল ৫ পয়সা। এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৪ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ১৫ পয়সা। এছাড়া শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৬ টাকা ৩২ পয়সা।

বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৫ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর ছিল ৬৫ পয়সা। এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৩৭ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৬৬ পয়সা। এছাড়া শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৮ টাকা ২৪ পয়সা।

ফনিক্স ফাইন্যান্স: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৬ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর ছিল ৪৯ পয়সা। এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮৯ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ১ টাকা ২৫ পয়সা। এছাড়া শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২১ টাকা ৫১ পয়সা।

কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্স: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২২ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর ছিল ২১ পয়সা। এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮২ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ৮০ পয়সা। এছাড়া শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৭ টাকা ৯৩ পয়সা।

মাইডাস ফাইন্যান্স: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসনা (ইপিএস) হয়েছে ৩২ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর শেয়ারপ্রতি আয় ছিল ১০ পয়সা। এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১৪ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছিল ২৪ পয়সা। এছাড়া শেয়ারপ্রতি সমন্বিত সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৯ টাকা ৫৭ পয়সা।

সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৯) ২১ কোটি ৬৬ লাখ টাকার প্রিমিয়াম আয় কমেছে। আগের বছর একই সময় কমেছিল ২৩ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। এদিকে ৯ মাসে (জানুয়ারি- সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির প্রিমিয়াম আয় কমেছে ৩৯ কোটি ৬২ লাখ টাকা। আর লাইফ ফান্ডের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৭৯৭ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। আগের বছর কোম্পানিটির প্রিমিয়াম আয় কমেছিল ৩১ কোটি ২০ লাখ টাকা। আর লাইফ ফান্ডের পরিমাণ ৮২০ কোটি ৫৫ লাখ টাকা।।

প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৯) ১ কোটি ৪১ লাখ টাকার প্রিমিয়াম আয় বেড়েছে। আগের বছর একই সময় কমেছিল ৪ কোটি ৬ লাখ টাকা। এদিকে ৯ মাসে (জানুয়ারি- সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির প্রিমিয়াম আয় বেড়েছে ১১ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। আর লাইফ ফান্ডের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৫৬৬ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। আগের বছর কোম্পানিটির প্রিমিয়াম আয় বেড়েছিল ১৮ কোটি ৭ লাখ টাকা। আর লাইফ ফান্ডের পরিমাণ ৫৩৯ কোটি ৭২ লাখ টাকা।।

ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৯) ৫৪ কোটি ২৯ লাখ টাকার প্রিমিয়াম আয় কমেছে। আগের বছর একই সময় কমেছিল ২৫ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। এদিকে ৯ মাসে (জানুয়ারি – সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির প্রিমিয়াম আয় বেড়েছে ১১ কোটি ০২ লাখ টাকা। আর লাইফ ফান্ডের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৪৭২ কোটি ৫৮ লাখ টাকা। আগের বছর কোম্পানিটির প্রিমিয়াম আয় বেড়েছিল ১৯ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। আর লাইফ ফান্ডের পরিমাণ ৩ হাজার ২৭১ কোটি ৩১ লাখ টাকা।

ঢাকা ইন্স্যুরেন্স: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫২ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর ছিল ৫৭ পয়সা। এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৫৪ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৪২ পয়সা। এছাড়া শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৩ টাকা ৮৭ পয়সা।

জনতা ইন্স্যুরেন্স: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩০ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর ছিল ২৩ পয়সা। এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫৭ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ৬৭ পয়সা। এছাড়া শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৩ টাকা ৮৯ পয়সা।

বার্জার পেইন্টস: দ্বিতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯ টাকা ৪৯ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর ছিল ৭ টাকা ৩৫ পয়সা। এদিকে ছয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২০ টাকা ৬১ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ১৪ টাকা ৭৪ পয়সা। এছাড়া শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৭১ টাকা ৮০ পয়সা।

এনসিসি ব্যাংক: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বও ২০১৯) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮২ পয়সা। একই সময়ে আগের বছর ছিল ৭১ পয়সা। এদিকে নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর ২০১৯) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ৭ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৬৬ পয়সা। এছাড়া শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২০ টাকা ৮০ পয়সা।

দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/রী

Share
নিউজটি ৩১২ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged