একীভূত হচ্ছে দাবি পরিশোধে অক্ষম ছোট বীমা কোম্পানিগুলো

সময়: রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৯ ১২:০১:১৩ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : দাবি পরিশোধে অক্ষম ছোট বীমা কোম্পানিগুলোকে একীভূতকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সিদ্ধান্তটি কার্যকর করতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ একটি কমিটি গঠন করবে। কমিটি ছোট ছোট বীমা কোম্পানিগুলোর কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করে একীভূতকরণের জন্য খসড়া নীতিমালা তৈরি করবে।

জানা গেছে, নীতিমালাটি চূড়ান্তের জন্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে প্রেরণ করা হবে। আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ ছাড়াও একীভূতকরণের পুরো প্রক্রিয়াটি পর্যবেক্ষণ করবে ‘বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ’ (আইডিআরএ), ‘রেজিস্ট্রার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মস’ (আরজেএসসি) এবং ‘বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন’ (বিএসইসি)।

এ প্রসঙ্গে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের (আইডিআরএ) সদস্য বোরহান উদ্দীন আহমেদ ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন’-কে বলেন, ‘তালিকাভূক্ত ও তালিকাবহির্ভূত বেশ কিছু দুর্বল বীমা কোম্পানি রয়েছে। যাদের দাবি পরিশোধের সক্ষমতা নেই। কোম্পানিগুলো গ্রাহক ও বিনিয়োগকারী উভয়ের জন্যই ঝুঁকিপর্ণ। এসব বিবেচনায় গ্রাহক ও বিনিয়োগকারী উভয়ের স্বার্থে ছোট ছোট বীমা কোম্পানিগুলোকে একীভূতকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তবে এ প্রক্রিয়া সম্পন্নের আগে পুঁজিবাজারের তালিকা-বহির্ভূত বীমা কোম্পানিগুলোকে তিন মাসের মধ্যে বিএসইসি’র শর্ত পূরণ-পূর্বক শেয়ারবাজারের তালিকাভূক্তির সুযোগ দেয়া হয়েছে।’

জানা গেছে, দেশে বর্তমানে সরকারি-বেসরকারি মিলে মোট ৭৮টি সাধারণ ও জীবন বীমা কোম্পানি রয়েছে। এর মধ্যে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত রয়েছে ৪৭টি। বাকি ৩১টি পুঁজিবাজারের বাইরে রয়েছে, যাদের মধ্যে সরকারি মালিকানাধীন সাধারণ বীমা করপোরেশন ও জীবন বীমা করপোরেশনও রয়েছে। এছাড়া মার্কিন বীমা কোম্পানি ‘মেটলাইফ’ এদেশে শাখা অফিস হিসেবে ব্যবসা করায় তাদের শেয়ারবাজারে তালিভুক্তির সুযোগ নেই। ফলে বাকি ২৮ বীমা কোম্পানিকে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হতে হবে।

জানা গেছে, প্রতিবেশি দেশ ভারতে বীমা কোম্পানির সংখ্যা মাত্র ২০টি। তবে ভারতের তুলনায় বাংলাদেশের বীমা ব্যবসার আকার অনেক ছোট হলেও ২০১৩ সালে দু’দফায় ১৬টি নতুন বীমা কোম্পানির অনুমোদন দেয় সরকার। ওই সময় অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে আইডিআরএ’র মতামত চাওয়া হলে সংস্থাটির তৎকালীন চেয়ারম্যান এম শেফাক আহমেদ জানান, বর্তমান পরিস্থিতি অনুযায়ী এ দেশের নতুন আর কোন বীমা কোম্পানির প্রয়োজন নেই। এর পরেও যদি দিতে হয়, তাহলে দুটির বেশি জীবন বীমা কোম্পানি নয়। তবে নিয়ন্ত্রণ সংস্থার এ মতামত উপেক্ষা করে সম্পূর্ণ রাজনৈতিক বিবেচনায় ১৬টি বীমা কোম্পানির অনুমোদন দেয়া হয়। সম্প্রতি আরো কিছু নতুন বীমা কোম্পানি লাইসেন্স পাওয়ার জন্য আইডিআরএ’-তে আবেদন করেছে বলে জানা যায়।

উল্লেখ্য, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তালিকাভুক্ত হতে না পারা কোম্পানিগুলোকে এখন প্রতিদিন ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা গুনতে হচ্ছে।

দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩৯৫ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged