এমডি শূন্য ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ

সময়: মঙ্গলবার, জানুয়ারি ১৪, ২০২০ ১২:০৩:১৪ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (এমডি) পদ গত বছর ১১ জুলাই থেকে শূন্য রয়েছে। ১১ জুলাই আগের এমডি’র মেয়াদ শেষ হয়। এরপর থেকে প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) আবদুল মতিন পাটোয়ারি ডিএসই’র ভারপ্রাপ্ত এমডি’র দায়িত্ব পালন করেছে। একাধিকবার বাড়ানোর পর ভারপ্রাপ্ত এমডি’র মেয়াদও গত রোববার শেষ হয়েছে। এরপর থেকে ডিএসই’র এমডি পদ শূন্য রয়েছে। বাজারের ক্রান্তিকালে ডিএসই এমডি নিয়োগ দেয়ার জন্য একজন বিতর্কিত ব্যক্তিকে সুপারিশ করেছে সংস্থাটি। এ বিষয়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) আজ সিদ্ধান্ত নিতে পারে।
একদিকে বাজারে দরপতন অপরদিকে ডিএসই’তে এমডি না থাকায় বাজারে বিনিয়োগকারীদের আস্থা সংকটকে আরও ত্বরান্বিত করছে। তাছাড়া ডিএসই যে বিতর্কিত ব্যক্তিকে এমডি নিয়োগের জন্য সুপারিশ বিএসইসি’তে পাঠিয়েছে তা অনুমোদিত হলে বাজারের অবস্থা আরও নাজুক হওয়ার শঙ্কা রয়েছে বলে মনে করছেন সংস্থাটির পরিচালকদের একাংশ।
এমডি নিয়োগে প্রার্থী চূড়ান্ত করার মুহুর্তে খোদ ডিএসই পরিচালনা পর্ষদে মতভেদ দেখ দেয়। এমডি হিসেবে নিয়োগের জন্য সুপারিশ প্রাপ্ত ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি) এর সাবেক এমডি কাজী সানাউল হকের যোগ্যতা নিয়ে ডিএসই পরিচালকদের একটি অংশ আপত্তি জানিয়ে বিএসইসি কে চিঠি দিয়েছে।
আপত্তিতে বলা হয়েছে, এমডি নিয়োগে প্রথাগত প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়নি। এমডি নিয়োগ চূড়ান্ত সুপারিশের আগে পর্ষদের সঙ্গে প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার করানোর কথা থাকলেও তা করা হয়নি। এছাড়া প্রার্থীর বিষয়ে পরিচালকদের আগে জানানো হয়নি এবং নোটিশ সঠিকভাবে উপস্থাপন করা হয়নি। প্রার্থীর বিষয়ে কমপক্ষে ৩ দিন আগে পরিচালকদের অবহিত করা উচিৎ ছিল। তাছাড়া কাজী সানাউল হকের ক্যাপিটাল মার্কেটের ওপরে আন্তর্জাতিক দক্ষতা বা বিশেষ কোন প্রফেশনাল (সিএ/সিএমএ/সিপিএ) সার্টিফিকেট নেই। প্রার্থীর সংক্ষিপ্ত তালিকার পূর্বে এসব বিষয় যাচাই করে নমিনেশন অ্যান্ড রেমিউনারেশন কমিটি (এনআরসি) ডিএসই’র পর্ষদে পাঠানোর কথা থাকলেও তা করা হয়নি। একইসঙ্গে প্রার্থীর জীবনবৃত্তান্তসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করা হয়নি। এতে প্রার্থী কোনো ব্যবসায় জড়িত আছে কিনা, তার বিও হিসাব আছে কিনা ইত্যাদি তথ্যের ঘাটতি রয়েছে বলে বিএসইসি কে দেয়া চিঠিতে উল্লেখ করেছেন পরিচালকদের একটি অংশ। একই সঙ্গে বিগত দিনে প্রার্থীর বিতর্কিত কর্মকান্ড সম্পর্কে বিএসইসি’কে অবহিত করেন তারা।
প্রায় ৬ মাস ধরে ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক দিয়েই চলছে ডিএসই। তিন দফা বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বিতর্কিত ব্যক্তিকে এমডি নিয়োগের জন্য সুপারিশ করে বিএসইসি’তে চিঠি দেয় ডিএসই। গত সপ্তাহে ডিএসই’র একজন প্রভাবশালী পরিচালকের সহায়তায় প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করে সংস্থাটি। এতে অধিকাংশ পরিচালকের সম্মতি ছিল না। আর তারাই আপত্তি জানিয়ে বিএসইসি কে চিঠি দিয়েছে। আর বিষয়টি সমাধানে আজকের কমিশন মিটিংয়ে সিদ্ধান্ত হতে পারে।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩৪৯ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged