ফেসভ্যালুর নিচে ৪৩ কোম্পানির শেয়ার দর

সময়: বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১০, ২০১৯ ১২:০৫:০৬ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : সূচক একদিন বাড়লে দুদিন কমছে, এভাবে কেটে যাচ্ছে দিনের পর দিন। নানা উদ্যোগেও পুঁজিবাজারে গতি ফিরে পাচ্ছে না। বাজারের এ মন্দা পরিস্থিতিতে গতকাল বুধবার পর্যন্ত মিউচ্যুয়াল ফান্ড বাদে ৪৩টি কোম্পানির শেয়ার দর ফেসভ্যালুর নিচে লেনদেন হয়েছে। গত সেপ্টেম্বরের সংখ্যা আরও বেশি ছিল। তবে গত ২ অক্টোবর ‘রিটার্ন আনিং নেগেটিভ থাকলে কোম্পানিগুলো লভ্যাংশ দিতে পারবে’- নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)-এর জারি করা নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে বেশকিছু কোম্পানির শেয়ার দর ফেসভ্যালুর ওপরে উঠে এসেছে। তবে এগুলো ফেসভ্যালুর কাছাকাছি লেনদেন হচ্ছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেন পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে।

যেসব কোম্পানির দর ফেস ভ্যালুর নিচে অবস্থান করছে সেগুলো হচ্ছে- ফাস্ট সিকিউরিটিজ ইসলামী ব্যাংক, ফার কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ, আইএফআইসি ব্যাংক, ফুওয়াং সিরামিক, খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ, স্টাডার্ড ব্যাংক, মোজাফ্ফর হোসেন স্পিনিং মিলস, অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ, সেন্ট্রাল ফার্মা, মিথুন নিটিং, ন্যাশনাল ফিড মিলস, এবি ব্যাংক, গোল্ডেন সন, অলিম্পিক এক্সেসোরিজ, ন্যাশনাল ব্যাংক, আলিফ ম্যানুফেকচারিং, ইয়াকিন পলিমান, প্রাইম ফাইন্যান্স, ইউনিয়ন ক্যাপিটাল, এফএএস ফাইন্যান্স, জাহিন স্পিনিং, মেট্টো স্পিনিং, প্রিমিয়ার লিজিং, জাহিনটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স, অ্যাপোলো ইস্পাত, ম্যাকসন্স স্পিনিং, ডেল্টা স্পিনিং, আরএন স্পিনিং, বেক্সিমকো সিনথেটিক, কেয়া কসমেটিক, জেনারেশন নেক্সট, ঢাকা ডাইং, ফাস্ট ফাইন্যান্স, তাল্লু স্পিনিং, ফ্যামেলিটেক্স, ফারইস্ট ফাইন্যান্স, বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স কোম্পানি (বিআইএফসি), আইসিবি ইসলামী ব্যাংক, তুংহাই নিটিং, সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইল, ইউনাইটেড এয়ার।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নে পুঁজিবাজার বড় ধরনের ভূমিকা রাখছে। কিন্তু তারল্য সংকটসহ নানা কারণে বাজারে সূচক কমছে। এতে বিভিন্ন কোম্পানির শেয়ার দর কমে বাজারের পতন তরান্বিত হচ্ছে। দীর্ঘ মন্দায় পুঁজি বিনিয়োগ করে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা নিরব রয়েছে। বড় ধরনের বিনিয়োগকারীরা সাইড লাইনে অবস্থান করছে, সাধারণ বিনিয়োগকারীরা বাজারের প্রতি আস্থা হারাচ্ছে। ফলে প্রায় একশ কোম্পানির দর ফেসভ্যালুর নিচে লেনদেন হয়েছিল। কিন্তু সম্প্রতি রিটার্ন আর্নিংস নেগেটিভ থাকলেও লভ্যাংশ দিতে পারবে এমন খবরে বেশ কিছু লোকসানি কোম্পানির দর বেড়েছে। ফলে ফেসভ্যালুর নিচে লেনদেন হওয়া কোম্পানির সংখ্যা কমেছে। তবে বাজার পরিস্থিতির উন্নতি না হলে এসব কোম্পানির তালিকা আরও বড় হওয়ার সংশয় রয়েছে।
তারা আরও বলছেন, বাজারের মন্দা পরিস্থিতি থেকে উত্তোরণে সরকার উদ্যোগ নিয়েছে। এ ধারাবাহিকতায় স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে সরকারের একাধিক বৈঠক হয়েছে। বৈঠক হলেও দৃশ্যমান অগ্রগতি না বাড়ানোর কারণে বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফিরছে না। দৃশ্যমান ও কার্যকরী পদক্ষেপ বাস্তবায়নের মাধ্যমে পুঁজিবাজার স্থিতিশীল হতে পারে। আর বাজার স্থিতিশীল হলে ফেসভ্যালুর নিচে লেনদেন হওয়া কোম্পানির দর বাড়বে। বিনিয়োগকারীরা তাদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারবেন বলে মনে করছেন তারা।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৪১১ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged