বন্ডের ১ হাজার কোটি টাকা সেকেন্ডারিতে বিনিয়োগ করবে আইসিবি

সময়: মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫, ২০১৯ ৯:১৯:৩৮ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি) ইস্যুকৃত বন্ডের মাধ্যমে সংগ্রহকৃত এক হাজার কোটি টাকার পুরোটাই সেকেন্ডারি মার্কেটে বিনিয়োগ করা হবে। ডিভেঞ্চার, কোম্পানির প্রি-আইপিও শেয়ার কেনাসহ বিভিন্ন লাভজনক খাতে বিনিয়োগের সুযোগ আসছে। কিন্তু অন্য কোথাও বিনিয়োগ করা হবে না।
গতকাল সোমবার আইসিবি এবং ডিএসই ব্রোকার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ডিবিএ)-এর সাথে পুঁজিবাজার উন্নয়ন বিষয়ক মতবিনিময় সভায় আইসিবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. আবুল হোসেন এ কথা বলেন।
আবুল হোসেন বলেন, ‘গতকাল সোনালী ব্যাংক আমাদের বন্ড ইস্যু করার মাধ্যমে আমাদেরকে ২০০ কোটি টাকা দিয়েছে। এভাবে রাষ্ট্রায়ত্ত আরও ৪টি ব্যাংক থেকে ২০০ কোটি টাকা করে মোট ৫টি ব্যাংক থেকে ১ হাজার কোটি টাকা সংগ্রহ করবো। এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রী ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দিয়েছেন। বন্ডের মাধ্যমে ব্যাংকগুলো থেকে সংগ্রহকৃত সকল টাকা আমরা পুঁজিবাজারে সেকেন্ডারি মার্কেটে বিনিয়োগ করা হবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘বর্তমানে বাজারকে আইসিবির পক্ষে একা সাপোর্ট দেয়া সম্ভব নয়। এখন বাজারের আকার অনেক বড়, সেই তুলনায় ফান্ডের পরিমাণ কম। তাই আইসিবির মত যদি আরও ৫টি বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান ও ২০-২৫ জন বাজার সৃষ্টিকারী (মার্কেট মেকার) তৈরি করা হয় তাহলে বাজার ভালো অবস্থানে যাবে।’
ডিবিএ’র সভাপতি শাকিল রিজভী বলেন, ‘বাজারে অনেক কোম্পানি আছে যারা প্রতিবছর শুধু স্টক ডিভিডেন্ড দেয়। কোম্পানির তালিকাভুক্তি থেকে আজ পর্যন্ত নগদ লভ্যাংশ দেয়নি- এমন কোম্পানিও আছে। আগে স্টক ডিভিডেন্ড দিলে বাজার ভালো হতো। কিন্তু বর্তমানে এটি ভিন্ন। বিনিয়োগকারীরা অনেক সচেতন। তারা বুঝে গেছে, কোম্পানির আয় নেই, বিনিয়োগ নেই, স্টক ডিভিডেন্ডের নামে কাগজ ধরিয়ে দেয়।’
আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্টের সিইও সোহেল রহমান বলেন, ‘নতুন তালিকাভুক্ত কোম্পানির ক্ষেত্রে প্রথম দিনে যে শেয়ারের দর ওঠে- এটি অস্বাভাবিক। প্রথম দিন যারা শেয়ার কিনে তারা আর লোকসান থেকে বের হতে পারে না। নতুন অধিকাংশ শেয়ারের দর ইস্যু দরের নিচে চলে এসেছে। পৃথিবীর কোথাও আইপিওর শেয়ারের দর এত বাড়ে না। এখানে প্রথম দিনেই ৪শ’ থেকে ৫শ’ গুণ বেড়ে যায়। এটি কমাতে ব্রোকারদের সহযোগিতা লাগবে।’
বৈঠকে ঢাকা ব্যাংক সিকিউরিটিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘অডিট ফার্মগুলোর কাজের সচ্ছতা আনতে হবে। এজন্য ফিনান্সিয়াল রিপোর্টিং কাউন্সিলকে জনবল বাড়াতে হবে। আরও সক্রিয় হতে হবে। আর্থিক প্রতিবেদন অতিরঞ্জিত করে অনেক প্রতিষ্ঠানই বাজারে আসছে। এতে বিনিয়োগকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।’
বৈঠকে আইসিবির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোসাদ্দেক-উল আলম, আইডিএলসি সিকিউরিটিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফুদ্দিন আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৪১৫ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged