শেয়ারবাজার লুটপাটকারীদের শাস্তির দাবিতে গণফোরামের মানববন্ধন

সময়: মঙ্গলবার, আগস্ট ৬, ২০১৯ ৫:৫১:৩৫ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : শেয়ারবাজারে গত কয়েক মাসের দরপতনের পেছনে জড়িতদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে গণফোরাম। দলটির ঢাকা মহানগর শাখার উদ্যোগে গতকাল সোমবার মতিঝিল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সামনের চত্বরে সকাল ১১টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। এ সময় গণফোরামের পক্ষ থেকে শেয়ারবাজার লুটপাটকারীদের শাস্তির দাবি করা হয়েছে। এ সময় ‘পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদ’ মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করে।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সরকার জনগণের কাছে জবাবদিহি করতে বাধ্য নয়। কারণ তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি। আর তাই শেয়ারবাজারের লুটতরাজের জবাবদিহিতা করতেও এই সরকার বাধ্য নয়। বাজার থেকে যখন হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট হয়ে যাচ্ছে, তখন লুণ্ঠনকারীদের ধরতে পারছে না সরকার।

তারা বলেন, আজকাল ডাক্তারের কাছে রোগী নিরাপদ নয়, সরকারের কাছে জনগণ নিরাপদ নয়, শেয়ারবাজারে বিনিয়োগকারীরা নিরাপদ নয়। আমাদের পুঁজিবাজারের ইতিহাস লুটপাটের ইতিহাস। তাই এ বাজারের সঙ্গে জড়িত ড. খায়রুল হোসেনকে পদত্যাগ করতে হবে। বিএসইসি’র কমিশনার আমাদের বিনিয়োগকারীদের আন্দোলনকে কথিত আন্দোলন বলে অখ্যায়িত করেছে। তাই হেলাল উদ্দিন নিজামী গংদের পদত্যাগ চাই। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর নিকট দাবি জানাই খায়রুল হোসেন, হেলাল উদ্দিন নিজামীর দুর্নীতির শ্বেতপত্র প্রকাশ করতে হবে।

তারা আরো বলেন, আমাদের দুর্ভাগ্য দেশের শেয়ারবাজার টানা ৫ মাস দরপতন হয়েছে। অথচ পৃথিবীর কোনো পুঁজিবাজার এমন দরপতনের ইতিহাস নেই। কিন্তু পতনের সঙ্গে জড়িতদের বিচার না করলে লাখ লাখ বিনিয়োগকারীদের জীবন হুমকির মধ্যে পড়বে। আমরা কোনো অপরাধ করিনি। বাজারে বিনিয়োগ করেছি লাভের আশায়। অথচ আমাদের পুঁজি লুট করে নিয়ে যাচ্ছে লুটপাটকারীরা। আর সরকারের নিয়োগকৃত দালালরা আমাদের নিয়ে ঠাট্টা করছে। মানুষের মৃত্যু হয় একবার আর আমাদের বিনিয়োগকারীদের হচ্ছে বারবার। কীভাবে আমাদের মৃত্যু হয় জানুন- বাসায় ঢুকার পর বাচ্চা যখন এসে বলে আমার স্কুলের বেতন দিতে পারছো না, আমাকে স্কুল থেকে বের করে দেবে। তখন আমরা লজ্জায় মরে যাই। মাস শেষে স্ত্রী যখন এসে বলে বাড়িওয়ালার ভাড়ার টাকা আটকে গেছে। বাড়িওয়ালা বলেছে, ভাড়া না দিতে পারলে বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে, তখনও লজ্জায় মরে যাই। মাস শেষে যখন দোকানদার বাকি টাকার জন্য চাপ দেয়, তখন টাকা দিতে পারি না। তখনও আমরা লজ্জায় মরে যাই। এভাবে ধুঁকে ধুঁকে আমাদের শেয়ারবাজারে সাধারণ বিনিযোগকারীদের মৃত্যু হচ্ছে।

মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে সভাপতি পরিষদ সদস্য মেসবাহউদ্দীন আহমেদ, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোশতাক আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক লতিফুল বারী হামিম, সম্পাদক মোহাম্মদ আজাদ হোসেন, খান সিদ্দিকুর রহমান, নাছির হোসেন, শাহ নুরুজ্জামান, জাহাঙ্গীর হাসান, মুহাম্মদ উল্লাহ মধু উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী বলেন, ‘শেয়ারবাজার থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা লুট করা হচ্ছে। এতে বিনিয়োগকারীরা নিঃস্ব হয়ে রাস্তায় নামছে। এই সমস্যা সমাধানে লুটেরাদের আইনের আওতায় আনতে হবে।’

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ছিল ৫ হাজার ৯৫০ পয়েন্ট, যা ২২ জুলাই কমে দাঁড়ায় ৪ হাজার ৯৬৬ পয়েন্টে। অর্থাৎ ৬ মাসে সূচক কমে ৯৮৪ পয়েন্ট বা ১৬ দশমিক ৫৩ শতাংশ। গতকাল সোমবার ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫ হাজার ১৬০ দশমিক ৩৭ পয়েন্টে অবস্থান করেছে।

দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩২২ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged