প্রকৌশল খাতে সাধারণের চেয়ে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে

সময়: বুধবার, জুলাই ৩১, ২০১৯ ৬:২৫:৪৫ পূর্বাহ্ণ


নাজমুল ইসলাম ফারুক : পুঁজিবাজারের প্রকৌশল খাতে তালিকাভুক্ত অধিকাংশ কোম্পানিতে সাধারণের চেয়ে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগের পরিমাণ বেড়েছে। বিগত কয়েক মাস ধরে বাজারে মন্দাভাব বিরাজ করায় এ খাতের অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ার দর কমেছে। তবে এ খাতে কোম্পানিগুলোর জুন ক্লোজিংয়ে ভালো লভ্যাংশ পাবার সম্ভাবনা এবং মৌলভিত্তিকে বিবেচনায় এনে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধির কথা ভেবে বিনিয়োগ বাড়িয়েছে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা। বর্তমান প্রেক্ষাপটে এ খাতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বৃদ্ধিকে ইতিবাচক বলে মনে করছেন বাজারসংশ্লিষ্টরা।
তাদের মতে, শেয়ারবাজারে দীর্ঘ মন্দার কারণে সকল খাতের কোম্পানির শেয়ার দর অনেকটাই কমে গেছে। বর্তমানে কোম্পানিগুলোর যে দর রয়েছে, তা বিনিয়োগ যোগ্য অবস্থায় রয়েছে। খাতটিতে কিছু মৌলভিত্তিসম্পন্ন কোম্পানি রয়েছে। বিনিয়োগকারীদের ওসব কোম্পানির ওপর এখনো আস্থা রয়েছে। বিষয়টি মাথায় রেখেই এ খাতে বিনিয়োগ বাড়িয়েছে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসইর) জুনের প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ারধারণের তথ্য পর্যালোচনা করে জানা গেছে, প্রকৌশল খাতের কোম্পানির সংখ্যা মোট ৩৮টি। এসব কোম্পানির মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ২৩টিতে বেড়েছে, কমেছে ১২টিতে। এ খাতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ বেড়েছে ১৫টিতে ও কমেছে ২০টিতে। এছাড়া খাতটিতে প্রাতিষ্ঠানিক ও সাধারণ বিনিয়োগ অপরিবর্তিত রয়েছে ৩টি কোম্পানিতে।
এ সম্পর্কে পুঁজিবাজার বিশ্লেষক অধ্যাপক আবু আহমেদ ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন’কে বলেন, ‘প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা কোনো কোম্পানিতে বিনিয়োগের পূর্বে কী পরিমাণ রিটার্ন হবে তা নিয়ে গবেষণা করে। সেদিক বিবেচনা করে তারা দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগ করে। প্রকৌশল খাতের কোম্পানিগুলোতে বিনিয়োগ পূর্বে তারা সেই কাজটিই করেছেন বলে মনে করছি।’
তিনি আরো বলেন, ‘পুঁজিবাজারে ডে-ট্রেডারের ভূমিকায় না গিয়ে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগেই ভালো রিটার্ন পাওয়া যায়।’
প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বৃদ্ধি পাওয়া তালিকায় থাকা প্রকৌশল খাতের কোম্পানিগুলো হলো- আফতাব অটোস, আনোয়ার গ্যালভানাইজিং, অ্যাপোলো ইস্পাত, আজিজ পাইপ, বিবিএস, বিবিএস ক্যাবলস, বিডি থাই, বেঙ্গল উইন্সর থার্মোপ্লাস্টিক, বিএসআরএম লিমিটেড, বিএসআরএম স্টিল, গোন্ডেন সন, জিপিএইচ ইস্পাত, ইফাদ অটোস, কেডিএস অ্যাক্সেসরিজ, নাভানা সিএনজি, ন্যাশনাল পলিমার, কাসেম ইন্ডাস্ট্রিজ, আরএসআরএম স্টিল, রানার অটোমোবাইলস, এস আলম কোল্ডরোল্ড স্টিলস, সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ, সিঙ্গার বিডি ও ইয়াকিন পলিমার।
আর বিনিয়োগ কমার তালিকায় থাকা কোম্পানিগুলো হলো- এটলাস বাংলাদেশ, বিডি ল্যাম্পস, দেশবন্ধু পলিমার, ইস্টার্ন ক্যাবলস, মুন্নু জুট স্টাফলার্স, নাহি অ্যালুমিনিয়াম, ন্যাশনাল টিউবস, অলিম্পিক অ্যাক্সেসরিজ, ওয়াইম্যাক্স, রংপুর ফাউন্ড্রি, এসএস স্টিল ও ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড।
এদিকে সাধারণ বিনিয়োগ বৃদ্ধি পাওয়ার তালিকায় থাকা প্রকৌশল খাতের কোম্পানিগুলো হলো- আফতাব অটোস, এটলাস বাংলাদেশ, বিডি ল্যাম্পস, বিডি থাই, দেশবন্ধু, ইস্টার্ন ক্যাবলস, মুন্নু জুট স্টাফলার, ন্যাশনাল পলিমার, ন্যাশনাল টিউবস, অলিম্পিক অ্যাক্সেসরিজ, ওয়াইম্যাক্স, রংপুর ফাউন্ড্রি, রানার অটোস, সিঙ্গার বিডি, ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড। এছাড়া অন্য কোম্পানিগুলোতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ কমেছে।
এদিকে মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (বিএমবিএ) মাহাসচিব ও এমটিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্টের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) খায়রুল বাশার আবু তাহের মোহাম্মদ ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন’কে বলেন, ‘দীর্ঘমন্দার কারণে অন্য খাতের পাশাপাশি প্রকৌশল খাতের শেয়ার দর অনেকটা কমে গিয়েছিল। তবে এ খাতে কিছু মৌলভিত্তিসম্পন্ন কোম্পানি আছে, যাদের প্রতি বিনিয়োগকারীদের এখনো আস্থা রয়েছে। এসব কোম্পানির জুনে হিসাব বছর শেষে ভালো লভ্যাংশ দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিষয়টিকে মাথায় রেখেই এ খাতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা তাদের বিনিয়োগ বাড়িয়েছেন।’

দৈনিক শেয়ারবাজার /এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩৪২ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged