বিশ্ব বিনিয়োগকারী সপ্তাহ শুরু আজ

চালু হচ্ছে অভিযোগ নিষ্পত্তির সফটওয়্যার ‘সিসিএএম’

সময়: সোমবার, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৯ ৯:০৬:১৬ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশে বিশ্ব বিনিয়োগকারী সপ্তাহ শুরু হয়েছে আজ সোমবার থেকে, যা চলবে আগামী ৪ অক্টোবর পর্যন্ত। বরাবরের মতো এবারও বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) বিশ্ব বিনিয়োগকারী সপ্তাহ উদযাপন করছে। একই সঙ্গে বিনিয়োগকারীদের সুবিধার্থে অনলাইনে অভিযোগ নিষ্পত্তির জন্য সফটওয়্যার উদ্বোধন করবে বিএসইসি। সফটওয়্যারটির নামকরণ করা হয়েছে ‘কাস্টমার কমপ্লেইন অ্যাড্রেস মডিউল’ (সিসিএএম)।

জানা গেছে, ‘বিশ্ব বিনিয়োগকারী সপ্তাহ’ ঘোষণা করে বিশ্বব্যাপী তা উযাপনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন অব সিকিউরিটিজ কমিশনস (আইওএসসিও)। আইওএসসিও-এর ঘোষণা অনুযায়ী গত ২ বছর যাবত বিএসইসি বাংলাদেশে বিনিয়োগকারী সপ্তাহ পালন করে আসছে।

বিনিয়োগকারী সপ্তাহের মূল উদ্দেশ্য হলো- বিনিয়োগ শিক্ষাসম্পর্কিত তথ্য-উপাত্ত বিনিয়োগকারীদের নিকট প্রচার ও অবহিতকরণের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের সচেতন করা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করা। আইওএসসিও-এর ‘অ’ ক্যাটাগরির সদস্য হিসেবে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন উক্ত সপ্তাহ পালনের সিদ্ধান্ত প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। যা বিশ্ব অঙ্গনে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করে।

এদিকে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই), চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই), প্রাথমিক গণপ্রস্তাবসহ (আইপিও) সার্বিক বিষয়ে গ্রাহকের অভিযোগ গ্রহণের পাশাপাশি তা দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য অনলাইনে নতুন সেবা দেবে বিএসইসি। অনলাইনে সিসিএএমের মাধ্যমে অভিযোগ দাখিল করতে হলে একজন বিনিয়োগকারীকে বাধ্যতামূলক কিছু তথ্য দিতে হবে। এগুলো হচ্ছে- বিনিয়োগকারীদের ১৬ ডিজিটের বিও একাউন্ট নম্বর, ঠিকানা, ই-মেইল আইডি ও মোবাইল নম্বর। অভিযোগকারীর দেয়া ইমেইল আইডি ও মোবাইল নম্বরে ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড বা ওটিপি পাঠানো হবে এবং ইমেইলের মাধ্যমে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হবে। অভিযোগ দাখিলের নির্দিষ্ট কয়েকটি ধাপ সম্পন্ন করার পর অভিযোগকারী ইমেইলে একটি প্রাপ্তি স্বীকারপত্র পাঠানো হবে, যাতে অভিযোগের আইডি নম্বর দেয়া হবে। এটি অভিযোগকারীকে সংরক্ষণ করতে হবে। পুরো সেবাটি বিনামূল্যে দেবে বিএসইসি।
ডিএসই ট্রেকহোল্ডার, সিএসই ট্রেকহোল্ডার এবং ডিপোজিটরি অংশগ্রহণকারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ যথাযথভাবে ডিএসই, সিএসই এবং সিডিবিএল নিষ্পত্তি করার জন্য একটি কাট-অব-ডেট বা প্রান্ত সীমা তারিখ থাকবে।

কোম্পানি বা ইস্যুয়ারদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিএসইসি’র এসআরএমআইসি বিভাগে পাঠানো হবে। অভিযোগ নির্ধারিত কাট-অব তারিখের মধ্যে নিষ্পত্তি না করা হলে সিস্টেম স্বয়ংক্রিয়ভাবে তাগাদা সূচক চিঠি প্রেরণ করবে। সিসিএএম সম্পূর্ণ বাস্তবায়নের আগ পর্যন্ত ম্যানুয়ালি প্রাপ্ত অভিযোগ স্ক্যান করে সিস্টেমে আপলোড করা হবে। এই মডিউলের মাধ্যমে একজন অভিযোগকারী অভিযোগ নাম্বার প্রদান করে তার অভিযোগের অবস্থা জানতে চাইতে পারেন। এ বিষয়ে এসআরআই বিভাগ উত্তর পাঠাবে।

এই মডিউলে আপিলের বিধানও রয়েছে। কোনো অভিযোগকারী অভিযোগের ফলাফলে সন্তুষ্ট না হলে তিনি পর্যালোচনার জন্য একটি আবেদন জমা দিতে পারবেন। শুধু যাদের কাছে অভিযোগ নাম্বার রয়েছে, তারাই কেবল এই আপিল করতে পারবেন। মডিউলে একটি ডাটাবেজ থাকবে এবং অভিযোগ পরিচালনার সম্পর্কিত সব তথ্য ডাটাবেজে স্বয়ংক্রিয়ভাবে সংরক্ষণ করা হবে। এই মডিউলের ডাটাবেজে তথ্য বিশ্লেষণ ব্যবস্থা থাকবে, যা সুপারভিশনের কাজে ব্যবহার করা যাবে।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩৫৯ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged