NBR

জরিপের নামে করদাতাদের হয়রানি

সময়: সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৯ ১২:০৩:০০ পূর্বাহ্ণ


সাইফুল শুভ : আয়কর দেয়ার সক্ষমতা আছে, কিন্তু কর দেন না- এমন ব্যক্তিদের খোঁজে মাঠ জরিপ করছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। কিন্তু আয়কর দেন এমন ব্যক্তিদের হয়রানির অভিযোগ ওঠেছে। এ নিয়ে বিভিন্ন কর অঞ্চল ও এনবিআরে অভিযোগ করছেন করদাতারা। তবুও জরিপের নামে হয়রানি চলছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র।
জানা গেছে, আগামী দুই বছরে এক কোটি করদাতা তৈরি করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সেই অনুযায়ী এগুচ্ছে এনবিআরের কার্যক্রম। এ লক্ষ্যে চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরে দেশব্যাপী জরিপ কার্যক্রম শুরু করা হয়। এরই অংশ হিসেবে মাঠপর্যায়ে ২১৩টি জরিপ টিম গঠন করা হয়েছে। ওই জরিপ টিম বাড়ি বাড়ি গিয়ে যারা কর দিচ্ছেন ও কর সনাক্তকরণ নম্বর (টিআইএন) রয়েছে এমন ব্যক্তিদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করছেন।
এনবিআরের একটি সূত্র জানিয়েছে, যেসব ব্যক্তিদের টিআইএন নাম্বার নেই অথচ কর দেয়ার সক্ষমতা আছে, জরিপ টিম তাদের কাছেই যাবে। যদি কেউ বলে আমার টিআইএন নাম্বার আছে, তাকে পুনরায় জিজ্ঞাসাবাদ করার কোনো এখতিয়ার জরিপ দলের নেই। যদি কেউ এমন আচরণ করে থাকে তার ভিন্ন উদ্দেশ্য আছে। কারণ যে ইতোমধ্যেই করজালে আছে, সে নিয়মিত রিটার্ন দেবে অথবা রিটার্ন না দিলে কর অঞ্চলগুলো তার সাথে যোগাযোগ করবে। জরিপের কাজ ভিন্ন।
এ বিষয়ে কর জরিপ ও পরিদর্শনের দায়িত্বে থাকা এনবিআর সদস্য মো. মেফতাহ উদ্দিন খান ‘দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন’-কে টেলিফোনে জানান, তিনি দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। তাই বিস্তারিত কিছু বলা সম্ভব নয়। এমন কোনো অভিযোগ পাওয়া গেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেবে এনবিআর।
জানা গেছে, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের আয়কর বিভাগ অর্থবছরে দেশব্যাপী মোট ৬ লাখ ৭২ হাজার করদাতা তৈরি করার লক্ষ্যে জরিপ কার্যক্রম শুরু করেছে। সেজন্য ইতোমধ্যেই মাঠপর্যায়ে কর অঞ্চল থেকে ২১৩টি জরিপ দল গঠন করা হয়েছে। প্রতিটি দলে ন্যূনতম ৫ জন সদস্য কাজ করছে। এর মধ্যে ২ জন কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী রয়েছে। প্রতিটি কর অঞ্চলের জন্য লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। সর্বশেষ জুন ২০১৯ পর্যন্ত ৪ লাখ ৭৬ হাজার ৪৬৫টি জরিপ সম্পন্ন হয়েছে। প্রাপ্ত জরিপের তথ্যের ভিত্তিতে মোট ৩ লাখ ৩১ হাজার ২৭২টি টিআইএন বরাদ্দ করা হয়েছে। আর প্রাপ্ত জরিপ কার্যক্রমের মাধ্যমে কর মামলা নিষ্পত্তি করে প্রায় ২৮ কোটি ৩৩ লাখ টাকার কর আহরণ করা হয়েছে।
দৈনিক শেয়ারবাজার প্রতিদিন/এসএ/খান

Share
নিউজটি ৩৯১ বার পড়া হয়েছে ।
Tagged